রক্তদানে রাজ্যের অগ্রণী সংগঠন ই-ব্লাড - আরশি কথা

আরশিকথা ঝলক

Home Top Ad

Responsive Ads Here

Post Top Ad

Responsive Ads Here

মঙ্গলবার, ২৪ এপ্রিল, ২০১৮

রক্তদানে রাজ্যের অগ্রণী সংগঠন ই-ব্লাড



সেবা ও দান মানবজীবনকে এক পূর্ণতার ইতিহাসে প্রসিদ্ধ করে । এক জীবনে আমরা সবাই নানাভাবে এই দুই মহৎ উদ্দেশ্যে নিজেদের যুক্ত রেখে শ্রেষ্ঠ আনন্দের ভাগীদার হই । দানের ক্ষেত্রে রক্তদান এক শ্রেষ্ঠ দান । বেঁচে থাকা আর বাঁচিয়ে রাখা এই দুইয়ের অন্তর্নিহিত অর্থে রক্তদান এক বিশেষ ভূমিকায় অবস্থান করে । প্রত্যেক রক্তদাতাই একজন বীর হিসেবে সমাজে পরিচিতি লাভ করেন । জানা যায় ১৯০১ সালে অস্ট্রিয়ান কার্ল ল্যান্ডস্টেইনার রক্তের বিভিন্ন গ্রুপ আবিষ্কারের পরই শুরু হয় রক্তদান । বর্তমানে প্রতিবছর সারা বিশ্বে প্রায় ৩ কোটি ২০ লক্ষ মানুষ রক্তদান করে থাকেন । ১৮ থেকে ৬০ বছর বয়স্ক সুস্থ সবল যেকোনো মানুষ রক্তদান করতে পারেন । বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার মত অনুযায়ী একজন সুস্থ্য পুরুষ ৩ মাস এবং নারী ৪ মাস অন্তর রক্তদান করতে পারেন । নিয়মিত রক্তদানের বেশ কিছু সুবিধা রয়েছে । যেমন প্রতি ৪ মাস অন্তর রক্তদান করলে দেহে নতুন Blood Cell তৈরির মাধ্যম সৃষ্টি হয় । এতে দেহের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা অনেকগুণ বেড়ে যায় । এছাড়া আরও অনেক সুবিধা লক্ষ্য করা যায় । সবচাইতে বড় কথা হল রক্তদান করে যে মানসিক তৃপ্তি আমরা লাভ করি তার মুল্য নির্ধারণ করার ক্ষমতা কারোর নেই । 

" আসুন ... আমরা সবাই জীবনের প্রয়োজনে নিজেদের জীবনকে যুক্ত করে রক্তদানে এগিয়ে আসি আর পূর্ণতায় থাকি । "  

রক্তদানের মত একটি মহৎ দানে রাজ্যের স্বনামধন্য " ই- ব্লাড ' সংস্থাটি বহুদিন ধরেই নিজেদের নিয়োজিত রেখেছে । রক্তের চরম সংকটে সংস্থাটি এক গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে আসছে । রাজ্যের অগণিত মানুষ এই সংস্থার সাথে নিজেদের যুক্ত করে এক শ্রেষ্ঠ আনন্দের প্রাপ্তিতে থাকছেন । ৩৬তম আগরতলা বইমেলায় এক উল্লেখযোগ্য অবস্থানে নিজেদের সহ সবাইকে আলোকময় করে " ই- ব্লাড ' সংস্থাটি যে বার্তা সমাজে দিতে চাইলো তা এককথায় প্রশংসনীয় । 

চলুন " ই- ব্লাড 'র হাত ধরে জীবনের শ্রেষ্ঠ আনন্দের ভাগীদার হই আর জীবনের প্রয়োজনে জীবনকে মর্যাদার আয়ুষ্কাল উপহার দেই ।।

এডিটর কলাম, আগরতলা
ছবিঋণঃ পার্থজিৎ দত্ত   

কোন মন্তব্য নেই:

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

Post Bottom Ad

Responsive Ads Here