৪ বছরের মোদি সরকারের সাফল্যের চিত্র তুলে ধরেন মুখ্যমন্ত্রী - আরশি কথা

আরশিকথা ঝলক

Home Top Ad

Responsive Ads Here

Post Top Ad

Responsive Ads Here

শনিবার, ২৬ মে, ২০১৮

৪ বছরের মোদি সরকারের সাফল্যের চিত্র তুলে ধরেন মুখ্যমন্ত্রী

তন্ময় বনিক,আগরতলাঃ
প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির নেতৃত্বে দুনিয়ার বিকাশ ইঞ্জিন হয়ে উঠেছে ভারত। মোদির নেতৃত্বে এনডিএ সরকার তার চার বছরে অনেক ঐতিহাসিক সিদ্ধান্ত নিয়েছে। তাতে লাভবান হয়েছে ত্রিপুরাও। কেন্দ্রীয় সরকারের চার বছর পূর্তিতে কথাগুলি বলেন রাজ্য বিজেপি'র সভাপতি তথা মুখ্যমন্ত্রী বিপ্লব কুমার দেব। শনিবার(২৬মে) দলের সদর কার্যালয়ে এক সাংবাদিক সম্মেলনের মধ্য দিয়ে মোদি সরকারের চার বছরের সাফল্যের খতিয়ান তুলে ধরেন তিনি। একে একে বিভিন্ন প্রকল্পগুলি থেকে মানুষ কিভাবে লাভবান হচ্ছেন তা তুলে ধরেন। সেই সঙ্গে রাজ্যের পূর্বতন বামফ্রন্ট সরকারের সমালোচনা করে বলেন, ২৫ বছরের রিপোর্ট কার্ড ওরা বের করুক। আর আমরাও আড়াই মাসের রিপোর্ট কার্ড বের করছি। তিনি বামফ্রন্টকে বিশেষ করে প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী মানিক সরকারকে এই চ্যালেঞ্জ ছুড়ে দেন। মুখ্যমন্ত্রী বলেন, মোদি সরকার আসার পর ৭টি করে আইআইটি এবং আইআইএম গড়া হয়েছে। স্কিল ইন্ডিয়ায় এক কোটির বেশী যুবক প্রশিক্ষণ নিচ্ছে। 
গরিবদের জন্য জনধন থেকে জনসুরক্ষা সবই হয়েছে। গরিবদের বীমা করা হয়েছে। প্রধানমন্ত্রী আবাস যোজনায় এক কোটি পরিবার আবাস পেয়েছে। ৩১শে মে'র মধ্যে ৫০০ এর নীচে জনসংখ্যার গ্রামগুলিকে সৌভাগ্য যোজনায় যুক্ত করার লক্ষ্যমাত্রা নেওয়া হয়েছে। এই লক্ষ্যে ত্রিপুরায়ও ৮০ শতাংশ কাজ সম্পন্ন হয়েছে। বিদ্যুৎ পৌঁছেছে দেশের ৮ কোটি ঘরে। ১.৬৯ লক্ষ কিলোমিটার গ্রামীণ সড়ক নির্মাণ করা হয়েছে। এনডিএ সরকারের চার বছরের রিপোর্ট কার্ড তুলে ধরতে গিয়ে মুখ্যমন্ত্রী বিপ্লব কুমার দেব আরও বলেন, রেলের পরিকাঠামো ও ট্র্যাকের উপর গুরুত্ব দেওয়া হয়েছে। উদাহরণ টানতে গিয়ে তিনি বলেন, ত্রিপুরায় নির্দিষ্ট সময়ের তিন মাস আগে ব্রডগেজ হয়েছে। উত্তর পূর্বাঞ্চলের জন্য ৮৯ হাজার কোটি টাকা বরাদ্দ করেছে রেলমন্ত্রক । 
এস সি, এস টি'দের জন্য মোদি সরকার বরাদ্দ করেছে ৯৫ হাজার কোটি টাকা। কৃষকদের রোজগার দ্বিগুণ করার লক্ষ্যমাত্রা নেওয়া হয়েছে। এর যোগ্য উদাহরণ ত্রিপুরার আনারস বিক্রির জন্য দুবাইয়ের সঙ্গে যে মৌ স্বাক্ষরিত হয়েছে তাতে ত্রিপুরায় আনারসের দামের দ্বিগুণ দামে আনারস বিক্রি করা হবে। ফসলবীমা যোজনায় ৪.০৫ কোটি কৃষক লাভবান হয়েছেন। বেড়েছে এফডিএ। মোদি সরকারের ঐতিহাসিক পদক্ষেপ জিএসটি। এই জিএসটি থেকে কেন্দ্র ও প্রতিটি রাজ্য রেভিনিউ পাচ্ছে বলে জানান শ্রী দেব। তিনি আরও বলেন,মোদি সরকার আসার পর কালো টাকা বিদেশে যায়নি। কেন্দ্রের বিভিন্ন প্রকল্প উল্লেখ করতে গিয়ে মুখ্যমন্ত্রী আরও বলেন, কেন্দ্রীয় প্রকল্পে ৩.১৫ কোটি শিশুকে টিকাকরণ করা হয়েছে। জনশক্তি প্রকল্পে ওষুধের দাম কমেছে। সুকন্যা সমৃদ্ধি যোজনায় কুড়ি হাজার কোটি টাকার প্রিমিয়াম জমা পড়েছে। 

মুখ্যমন্ত্রী সার্জিক্যাল স্ট্রাইক কে ঐতিহাসিক মাইলস্টোন বলে আখ্যা দেন। প্রধানমন্ত্রীর বিশেষ তহবিল থেকে ত্রিপুরা এখন পর্যন্ত ৩০০ কোটি টাকা পেয়েছে বলে জানান তিনি। ত্রিপুরায় ৬টি জাতীয় সড়ক, ফেনী নদীর উপর ব্রি্‌জ, বাংলাদেশের উপর দিয়ে রেলপথে যাতায়াত, বর্ডার হাট পাসপোর্ট অফিস সবই মোদি সরকারের আমলে হচ্ছে কিংবা হয়েছে বলে দাবি করেন শ্রী দেব। ২৭মে থেকে ১১জুন পর্যন্ত কেন্দ্রীয় সরকারের চার বছরের সাফল্যের প্রচার চলবে রাজ্যব্যাপী। এর জন্য সারা রাজ্যে কর্মসূচী হাতে নেওয়া হয়েছে। 
এদিনের এই সাংবাদিক সম্মেলনে মুখ্যমন্ত্রী ছাড়াও উপস্থিত ছিলেন বিধায়ক রামাপদ জমাতিয়া,দলের সাধারণ সম্পাদিকা প্রতিমা ভৌমিক, রাজীব ভট্টাচার্য ও যুব মোর্চার রাজ্য সভাপতি টিঙ্কু রায়। 

ছবিঋণঃ ইন্টারনেট হইতে সংগৃহীত

২৬শে মে ২০১৮ইং        
         
        

কোন মন্তব্য নেই:

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

Post Bottom Ad

Responsive Ads Here