ঢাকা বইমেলায় সালমা তালুকদারের ‘প্রত্যাবর্তন’ - আরশি কথা

আরশিকথা ঝলক

Home Top Ad

Responsive Ads Here

Post Top Ad

Responsive Ads Here

রবিবার, ৯ ফেব্রুয়ারী, ২০২০

ঢাকা বইমেলায় সালমা তালুকদারের ‘প্রত্যাবর্তন’

প্রভাষ চৌধুরী, ঢাকা ব্যুরো এডিটর: এবারের একুশে বইমেলায় প্রিয়বাংলা প্রকাশনের ২২৩-২২৪ নম্বর স্টলে পাওয়া যাচ্ছে সালমা তালুকদারের ‘প্রত্যাবর্তন’। লেখক সালমা তালুকদার বলেন, ‘আমাদের সমাজ নারীদের ছোটবেলা থেকে কিছু সংস্কারের মাঝে বড় করে। যা মৃত্যুর আগ পর্যন্ত একজন নারী লালন করে। এমনকি কখনো যদি জীবনের গতিপথ পরিবর্তনের সুযোগ আসে, তবু সমাজের কথা চিন্তা করে একজন নারী কিছুতেই সামনে এগোতে চায় না। অনেক সময় নারী তার জীবনের চরম কষ্ট মেনে নিতে রাজি থাকে,তবু পরিবর্তনের পথটা সুন্দরভাবে এড়িয়ে চলে। এমন দোটানা প্রত্যাবর্তন গল্পের প্রধান চরিত্র আয়শার জীবনেও এসেছিল। তবে অন্য সব নারীদের থেকে আয়শা চরিত্র একটু অন্যরকম। আয়শা চেষ্টা করেছে সাদাকালো জীবনটাকে রঙ্গের ভেলায় ভাসাতে। ‘প্রত্যাবর্তন’ বইটি আমার তৃতীয় একক বই। এর আগে ২০১৮ ও ২০১৯ এর বই মেলায় আসা দুটো বইয়ের নাম যথাক্রমে ‘আরশী’ ও ‘নিশাবসান’। ‘প্রত্যাবর্তন’ বইটি প্রকাশ করেছে প্রিয়বাংলা প্রকাশন। ২০২০ এর বইমেলার প্রথমদিন থেকেই বইটি প্রিয়বাংলার স্টলে পাওয়া যাবে।
কবি, লেখক, কথা সাহিত্যিক সালমা তালুকদার। ১৯৭৯ সালের ১০ নভেম্বর এক সম্ভ্রান্ত মুসলিম পরিবারে জন্ম গ্রহণ করেন। পৈত্রিক নিবাস চাঁদপুর। জন্ম পুরাণ ঢাকার বনগ্রাম এলাকায়। লেখকের পূর্ব পুরুষ ইয়েমেন থেকে বৈদ্য হিসেবে এসে এদেশে বসতি স্থাপন করেছিলেন। বাবা গোলাম মোহাম্মদ মোস্তফা তালুকদারও একজন লেখক, প্রকাশক এবং সম্পাদক ছিলেন। বর্তমানে তিনি একজন অবসরপ্রাপ্ত বাংলাদেশ ব্যাংকের কর্মকর্তা। মা মরহুমা গুলশান আরা চৌধুরী ছিলেন একজন সংস্কৃতি মনা মানুষ। তিন ভাই বোনের মধ্যে সালমা তালুকদার বড় সন্তান। বেগম বদরুন্নেসা সরকারি মহিলা কলেজ থেকে বাংলা বিষয়ে স্নাতক (সম্মান), স্নাতকোত্তর ডিগ্রী অর্জন করেন। তার যৌথ গ্রন্থগুলো যথাক্রমে ‘কাব্যের কথামালা’ ‘দিশা’ ‘শ্বেত পায়রার গল্প’ ‘বিশ্বসাহিত্য ও কবিতা সম্ভার’ ‘বুনো ফাগুন’ ‘কাব্যের ফেরিওয়ালা’, ‘জীবনের যত কাব্য ২’। বইমেলা ২০১৮ ও ২০১৯ এ তার ২ টি একক বই বের হয়েছে। নাম ‘আরশী’ ও ‘নিশাবসান’। এছাড়াও তার সম্পাদনায় ‘শব্দগুলো উড়ছে দেখো’ নামে একটি যৌথ কাব্যগ্রন্থ বের হয়েছে ২০১৯ এর বইমেলায়। তিনি বর্তমানে সেনাবাহিনী পরিচালিত বিশেষায়িত প্রতিষ্ঠান ‘প্রয়াস যশোর অঞ্চল’ এ স্পেশাল এডুকেটর হিসেবে কর্মরত আছেন। এবং তিনি কালি সাহিত্য ও সামাজিক সংগঠনের একজন সক্রিয় সদস্য।

আরশিকথা প্রচার-বিনোদন ডেস্ক

৯ই ফেব্রুয়ারি ২০২০

কোন মন্তব্য নেই:

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

Post Bottom Ad

Responsive Ads Here