প্রযুক্তির মাধ্যমে জল নিষ্কাশন প্রক্রিয়ার যাবতীয় পদ্ধতি খতিয়ে দেখলেন মুখ্যমন্ত্রী - আরশি কথা

আরশিকথা ঝলক

Home Top Ad

Responsive Ads Here

Post Top Ad

Responsive Ads Here

মঙ্গলবার, ২১ জুলাই, ২০২০

প্রযুক্তির মাধ্যমে জল নিষ্কাশন প্রক্রিয়ার যাবতীয় পদ্ধতি খতিয়ে দেখলেন মুখ্যমন্ত্রী

নিজস্ব প্রতিনিধি,আগরতলাঃ
স্মার্ট সিটি প্রকল্পের আওতায় মূলত নিরাপত্তাজনিত কারণেই আগরতলা শহরের সমস্ত অ্যাক্টিভিটি প্রতিদিন নজরে রাখা হচ্ছে ইন্টিগ্রেটেড কম্যান্ড এন্ড কন্ট্রোল রুম থেকে।শহরের বিভিন্ন জায়গায় লাগানো ৪৪১টি স্টিল ক্যামেরা এবং ২৩টি মুভি ক্যামেরার মাধ্যমে গোটা আগরতলার লাইভ দৃশ্য পর্যবেক্ষণে রাখা হয় উন্নত প্রযুক্তি সম্পন্ন এই সেন্টারে।আর এই প্রযুক্তির সাহায্যেই আগরতলা শহরে বৃষ্টিপাতের কারণে কোথাও জল জমে থাকলে তা সেন্টারে বসেই যাতে লাইভ দেখা যায় তার ব্যবস্থা গ্রহণ করেছেন ইউডি ডিপার্টমেন্টের দক্ষ অফিসাররা।ড্রেনেজ সিস্টেম ঠিকঠাক আছে কিনা কিংবা পাম্প চলছে কিনা সবই কন্ট্রোল রুমে বসে জানা যাবে।সেই মোতাবেক দপ্তর তৎক্ষণাৎ সিদ্ধান্ত নিয়ে জল নিষ্কাশনের যাবতীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করতে পারবে।এর ফলে শহরে বেশী সময় জল জমে থাকার সম্ভাবনা কমে যাবে।

মঙ্গলবার (২১ জুলাই) আইটি ভবন পরিদর্শন কালে এই তথ্য দেন মুখ্যমন্ত্রী বিপ্লব কুমার দেব।প্রসঙ্গত,মঙ্গলবার ভারী বৃষ্টিপাতের ফলে আগরতলা শহরের বিভিন্ন জায়গা জলমগ্ন হয়ে পড়ে।কিন্তু আগের তুলনায় কম সময়ের মধ্যে সেই জল নেমে যাওয়ায় শহরবাসীর মধ্যে খুশি পরিলক্ষিত হয়।
এই প্রসঙ্গে কথা বলতে গিয়ে মুখ্যমন্ত্রী জানান,আগে ১২/১৩ ঘণ্টা লাগতো জল কমতে।এখন দুই তিন ঘণ্টার মধ্যেই জল থাকছে না।এমন কি শহরের ৪টি বিশেষ জায়গা যেখানে জল বেশী জমে সেখানেও তিন চার ঘণ্টায় এদিন জল নেমে গেছে।এটা সম্ভব হচ্ছে স্মার্ট সিটি প্রকল্পের অধীন সুষ্ঠু পদক্ষেপের কারণে।উন্নত মানের ক্যামেরাগুলিকে জল পর্যবেক্ষণের ক্ষেত্রে কাজে লাগানোর জন্য মুখ্যমন্ত্রী এদিন ইউডি ডিপার্টমেন্টের উচ্চ প্রশংসা করেন পাশাপাশি দপ্তরের সবাইকে সাধুবাদ জানান।

ছবিঃ সুমিত কুমার সিংহ
আরশিকথা

২১শে জুলাই ২০২০     

কোন মন্তব্য নেই:

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

Post Bottom Ad

Responsive Ads Here