শ্রীলঙ্কান ক্রিকেট বোর্ডকে বিসিবি’র না, বাংলাদেশে চালু হচ্ছে ঘরোয়া ক্রিকেট - আরশি কথা

আরশিকথা ঝলক

Home Top Ad

Responsive Ads Here

Post Top Ad

Responsive Ads Here

সোমবার, ১৪ সেপ্টেম্বর, ২০২০

শ্রীলঙ্কান ক্রিকেট বোর্ডকে বিসিবি’র না, বাংলাদেশে চালু হচ্ছে ঘরোয়া ক্রিকেট

আবু আলী, ঢাকা,আরশিকথা ॥ বাংলাদেশের ক্রিকেট দলের শ্রীলঙ্কা সফরের ব্যাপারে নেতিবাচক খবর দিয়েছেন বিসিবি সভাপতি নাজমুল হাসান পাপন। শ্রীলঙ্কার স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের কড়া নিয়মের শর্ত মেনে সফর সম্ভব নয় বলে জানিয়ে দিয়েছেন তিনি। ১৪ সেপ্টেম্বর মিরপুর শেরে বাংলা ক্রিকেট স্টেডিয়ামে এসে জরুরী সভা করেন বিসিবি প্রধান। পরে সংবাদ মাধ্যমকে জানান, লঙ্কানদের ‘অস্বাভাবিক’ শর্ত মেনে নেওয়া তাদের পক্ষে কোনভাবেই সম্ভব নয়। নিজেদের এই অবস্থান শ্রীলঙ্কা ক্রিকেট বোর্ডকে জানিয়ে দেওয়া হয়েছে বলেও জানান নাজমুল। বাংলাদেশ দল শ্রীলঙ্কা সফর না করলে এই সময়ে দেশে ঘরোয়া ক্রিকেট চালু করার হবে বলেও জানিয়েছেন বোর্ড প্রধান। তিনি জানান, করোনা আক্রান্তের সংখ্যা অনেক কম থাকায় শ্রীলঙ্কাকে বেছে নিয়েছিলেন তারা, ‘শেষ যখন আপনাদের সঙ্গে কথা বলেছিলাম, বলেছিলাম ওই সময়ে শ্রীলঙ্কা সফর নিরাপদ। এটা ভাবার পেছনে কারণ ছিল ওদের করোনা রোগীর সংখ্যা কম ছিল। ওদের ওখানে ওরা ঘরোয়া ক্রিকেট শুরু করে দিয়েছে। আপনি যদি দেখেন অন্যান্য দেশে যখন খেলা বন্ধ হয়ে গিয়েছিল ওদের ওখানে খেলা চালু ছিল। ’
‘যেহেতু আমাদের এখানে অনুশীলন, খেলাধুলা বন্ধ করে রেখেছি। এখানে অনুশীলন করা কঠিন। সেজন্য আমরা চিন্তা করলাম, খেলোয়াড় কোচ সবার কথা চিন্তা করে ওদের ওখানে গিয়ে অনুশীলন করা নিরাপদ হবে। তারই পরিপ্রেক্ষিতে আমরা সিরিজটির জন্য রাজি হয়েছিলাম এবং আমরা বলেছিলাম ওখানে যাবো এবং বিশাল বাহিনী নিয়ে যাবো।‘ বিশ্ব টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপের অংশ হিসেবে তিন টেস্টের সিরিজ খেলতে চলতি মাসের শেষ দিকে শ্রীলঙ্কা সফরে যাওয়ার কথা ছিল বাংলাদেশের। জাতীয় দলের সঙ্গে এইচপি দলকেও সফরে নিয়ে যাওয়ার আলাপ অনেকখানি এগিয়ে গিয়েছিল। শ্রীলঙ্কায় গিয়ে এইচপি দলের সঙ্গে প্রস্তুতি ম্যাচ খেলে টেস্টের জন্য তৈরি হওয়ার পরিকল্পনা ছিল বিসিবির। তবে কোয়ারেন্টিনে থাকা ও সফরের সদস্য সংখ্যা সীমিত রাখা নিয়ে লঙ্কান বোর্ডের সঙ্গে আলোচনা হুট করে থমকে যায়। তিনি জানান, রোববার শ্রীলঙ্কা ক্রিকেট বোর্ডের কাছ থেকে পাওয়া চিঠির পর বদলে গেছে পুরো চিত্র, ‘ওখানে অনুশীলন করে আমরা তিন টেস্ট খেলে আসবো। শ্রীলঙ্কা সিরিজ নিয়ে এটাই ছিল আমাদের উদ্দেশ্য। আমাদের মধ্যে অনানুষ্ঠানিক যে কথাবার্তা হয়েছে সেগুলো এরকমই ছিল। কালকে যে চিঠিটা এসেছে, এটা দেখে বুঝলাম আমরা যে ভেবেছি তার ধারের কাছে তো না-ই। অন্যান্য যেসব দেশে এখন ক্রিকেট খেলা হচ্ছে তাদের সঙ্গেও কোনো মিল নেই।’ নাজমুল জানান লঙ্কানদের বেধে দেওয়া শর্ত রীতিমতো অস্বাভাবিক, ‘কতগুলো জিনিস একেবারেই নতুন। যেমন ধরেন, অন্যান্য জায়গায় কোনো দেশে সাতদিনের কোয়ারেন্টাইন হচ্ছে। কিন্তু অনুশীলন করতে পারছে। তারা তাদের মতো করে অনুশীলন করছে। কোনো জায়গায় তিন দিন পরই অনুশীলন করতে পারছে। জিমনেশিয়াম ব্যবহার করতে পারছে। কালকে যেটা পেলাম তাতে মনে হচ্ছে কেউ ১৪ দিন হোটেলের রুম থেকে বের হতে পারবে না। খাওয়ার জন্যও বের হতে পারবে না।’ তিনি বলেল, 'বাংলাদেশ দল হোটেলে প্রবেশের পর সেখান থেকে বের হতেই পারবে না, এমনকি খাওয়ার জন্যও বের হতে পারবে না। এমন হলে তো সম্ভব নয়। ওদের দেশে ঘরোয়া লিগ হচ্ছে, এতগুলো দল খেলছে তাদের নিয়ে কোনো সমস্যা নেই। আর আমাদের মাত্র একটা দলের জন্য এত সমস্যা? ক্রিকেটাররা অনুশীলন তো করতেই পারবে না আবার ঘর থেকেও বের হতে পারবে না। আমাদের প্ল্যান ছিল আমরা বিশাল একটি দল নিয়ে যাবো, ওখানে অনুশীলন করব এবং সিরিজ খেলে চলে আসব। কিন্তু গতকাল যে চিঠি পেয়েছি সেখানে দেখলাম আমরা যা ভেবেছিলাম তার ধারে কাছে তো নেইই সেই সঙ্গে যেসব দেশে খেলা হচ্ছে সেসব নিয়মের ভেতরেও নেই।'-যোগ করেন বিসিবি সভাপতি নাজমুল হাসান পাপন। পাপন বলেন, ‘আমরা আমাদের সিদ্ধান্তের ব্যাপারে তাদের জানিয়ে দিয়েছি। তবে তারা যে শর্ত দিয়েছে, তাতে সেখানে গিয়ে টেস্ট চ্যাম্পিয়নসশিপ খেলা সম্ভব না। আর সেখানে সফর না হলে ঘরোয়া লিগ শুরুর ব্যাপারে চিন্তা করা যাবে। ’ টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপ খেলতে ২১ সেপ্টেম্বর লঙ্কা সফরে যাওয়ার কথা ছিল বাংলাদেশ দলের। সেখানে ১৪ দিনের কোয়ারেনটাইন শেষে ১২ অক্টোবর পাঁচ দিনের দলগত অনুশীলন করবে বাংলাদেশ- এমনটাই চেয়েছে শ্রীলঙ্কা ক্রিকেট। এরপর ১৮ অক্টোবর থেকে চারদিনের প্রস্তুতি ম্যাচ শেষে দুই দিনের বিশ্রামের পর ২৪ অক্টোবর টেস্ট সিরিজ শুরু করতে চেয়েছিল তারা। এসএলসি বিসিবিকে এমন শর্ত দিয়েছে। আর পর্যাপ্ত অনুশীলন এবং সুযোগ সুবিধা প্রদান করতে অপারগতা দেখানোয় লঙ্কান ক্রিকেট বোর্ডকে না করে দিয়েছে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড। এই সফরে শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে তিনটি টেস্ট খেলার কথা টাইগারদের। যার প্রথম দুটি টেস্ট ক্যান্ডিতে এবং শেষ টেস্ট কলম্বোতে অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা ছিল।

আরশিকথা
১৪ই সেপ্টেম্বর ২০২০

কোন মন্তব্য নেই:

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

Post Bottom Ad

Responsive Ads Here