সম্বোধি'র ব্যতিক্রমী পদক্ষেপ 'প্যাপিরাস' - আরশি কথা

আরশিকথা ঝলক

Home Top Ad

Responsive Ads Here

Post Top Ad

Responsive Ads Here

রবিবার, ৬ মে, ২০১৮

সম্বোধি'র ব্যতিক্রমী পদক্ষেপ 'প্যাপিরাস'




 ‘সম্বোধি’ শব্দটার গভীরে যদি যাওয়া যায় তাহলে সেখানে এক পরম জ্ঞানের অস্তিত্ব খুঁজে পাওয়া যায়। এই সঠিক অর্থ অনুধাবন করে সেই গভীরতায় অন্বেষণরত ‘সম্বোধি’র পরিচালক ড. মন্দাক্রান্তা রায়। নিজে একজন প্রতিষ্ঠিত ভরতনাট্যম শিল্পী হয়েও দেশের নানা কলাশিল্পকে পাথেয় করে তার গুণগতমান অক্ষুণ্ণ রেখে নতুন নতুন আঙ্গিকে সবার সামনে উপস্থাপন করে চলেছেন। আর এই লক্ষ্যেই এক বড় স্বপ্নের ঔরসজাত হচ্ছে ‘সম্বোধি’। এরই অঙ্গ হিসেবে ২১ এপ্রিল থেকে ২৩ এপ্রিল পর্যন্ত আগরতলার সিটি সেন্টার আর্ট গ্যালারীতে  ‘প্যাপিরাস’ শীর্ষক একটি ব্যতিক্রমী অনুষ্ঠানের আয়োজন করে ‘সম্বোধি’। 
২১ এপ্রিল এই অনুষ্ঠানের শুভ উদ্বোধনে উপস্থিত ছিলেন রাজ্যের সমাজকল্যাণ ও সমাজশিক্ষা দপ্তরের মন্ত্রী সান্তনা চাকমা, ভারতীয় জনতা পার্টির রাজ্য যুবমোর্চার সভাপতি টিঙ্কু রায়, ধর্মনগর কলেজের প্রাক্তন অধ্যক্ষ ড. প্রাণতোষ রায় সহ রাজ্যের বিশিষ্ট গুণীজনেরা। 

কোনপ্রকারের রংতুলি ব্যবহার না করে Strips of papers –কে quill করে একেকটা শেপে এনে যে এত সুন্দরভাবে উপস্থাপন করা যায় তা না দেখলে বিশ্বাস করা যাবেনা। এই অসাধারণ কলার শিল্পীর নাম অসীম কান্তি পাল। যিনি বহুদিন ধরে এক সৃষ্টি সুখের উল্লাসে এই সৃষ্টিধর্মী কাজে নিজেকে যুক্ত করে রেখেছেন। অসীমবাবু আগরতলায় শিক্ষকতার কর্মজীবন সফলতার সঙ্গে শেষ করে বর্তমানে কোলকাতায় বাস করছেন। কুইলিং আর্ট ছাড়া পেইন্টিং, ক্র্যাফটস এবং ফটোগ্রাফির নেশায় সর্বদা মেতে থাকেন। নানা শিল্পকর্মে বুঁদ হয়ে নিজ অস্তিত্বে নিরবে করে যাচ্ছেন বহু সৃষ্টিধর্মী কাজ। ‘প্যাপিরাস’ মানে কাগজ। অনবদ্য এক সুন্দর ভাবনার সাথে সৃষ্টিসুখের উল্লাস মিলেমিশে এক আকাশ হয়ে রংবেরঙের কাগজের কারুকার্যে অসাধারণ চিত্রে পরিস্ফুট হচ্ছে আর অপরের চোখে অনবদ্য হয়ে উঠছে। এখানেই শিল্পটির সার্থকতা যা এনে দিলো ড.মন্দাক্রান্তা রায়ের ‘সম্বোধি’। 
আরশি কথা’র সাথে কথাপ্রসঙ্গে মন্দাক্রান্তা জানায় ‘Qulling Art’  সাধারণত ভারতবর্ষে হয়না। ইউরোপিয়ান দেশে হয়। সূত্র অনুযায়ী অসীমবাবুই প্রথম ব্যক্তি যিনি এই আর্ট নিয়ে কাজ করে চলেছেন। 

আরশি কথা’ এইধরনের উদ্যোগের মাধ্যমে আমাদের ঋদ্ধতার পরশে রাখার জন্য ড. মন্দাক্রান্তা রায় এবং ‘সম্বোধি’কে  সাধুবাদ জানায়। পাশাপাশি এই অপরূপ চিত্রকলার সাথে আমাদের পরিচিতি ঘটিয়ে দেবার জন্য সৃজন অসীম কান্তি পালকে ধন্যবাদ জ্ঞাপন করছে। 


এডিটর ডেস্ক, আরশিকথা              



কোন মন্তব্য নেই:

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

Post Bottom Ad

Responsive Ads Here