বীর সুভাষের আদর্শে আজও অনুপ্রাণিত নতুন প্রজন্ম - আরশি কথা

আরশিকথা ঝলক

Home Top Ad

Responsive Ads Here

Post Top Ad

Responsive Ads Here

বৃহস্পতিবার, ২৩ জানুয়ারী, ২০২০

বীর সুভাষের আদর্শে আজও অনুপ্রাণিত নতুন প্রজন্ম

আত্মসম্মানবোধ , কনফিডেন্স এবং মানসিক দৃঢ়তা কেমন করে একটি সাহসী সত্তার জন্ম দিতে পারে , তার জ্বলন্ত উদাহরণ নেতাজী সুভাষ । যে দেশ আজও এক সত্যিকারের পথপ্রদর্শক এর অভাব বোধ করছে প্রতিনিয়ত, সে দেশের পবিত্রভূমিতে একবিংশ শতাব্দীতে দাঁড়িয়ে আমরা একজনকেই স্মরণ করি বারবার। তিনি আমাদের প্রাণপ্রিয় সুভাষ , শৌর্য ও বীর্যের সমন্বয়ে জাত এক চিরোজ্জ্বল জ্যোতিষ্ক । অন্ধ পরানুকরণ ও আত্মবিশ্বাস এর অভাব যখন কালো মেঘের মতো ঘনিয়ে এনেছে আজকের যুবশক্তিকে , তখন আমরা আমাদের প্রতিটি নিঃশ্বাসে প্রশ্বাসে অনুধাবন করি সুভাষের পুনরাবির্ভাব এর আবশ্যকতা ।
দেশপ্রেম ও দেশের মানুষের সর্বাঙ্গীণ কল্যাণসাধনকে জীবনের একমাত্র ব্রত হিসেবে মন থেকে গ্রহণ করে তদানীন্তন ICS পরীক্ষায় চতুর্থ স্থান অধিকারী একজন ভারতীয় সন্তান কেমন করে পদ ও প্রতিপত্তির মোহকে উপেক্ষা করে ব্রিটিশ সরকারের দাসত্ব করা থেকে বিরত থেকে দেশবাসীর পাশে দাঁড়িয়েছিলেন , সুভাষ নামের সাথেই হয়তো জড়িয়ে রয়েছে সেই সৎসাহস ও প্রজ্ঞা ।
বর্তমান সময়ে দাঁড়িয়ে আমাদের যুবসমাজ ও আগামী প্রজন্ম যেমন করে ক্রমবর্ধমান দেশপ্রেমহীন , আন্তরিকতাবিহীন এক দিগভ্রান্ত ও নেহাতই বাণিজ্যিক জীবনশৈলীতে নিমজ্জিত হয়ে যাচ্ছে ক্রমশঃ নিজের দেশ ও সংস্কৃতি থেকে অনেকটাই বিচ্ছিন্ন হয়ে , তার সম্ভাব্য ভয়াবহ ভবিষ্যৎকে সঠিক পথের দিশা দেখাতে পারে একমাত্র নেতাজী সুভাষ চন্দ্র বসুর মতো একজন ব্যক্তিত্ব । মহামনীষীস্বামী বিবেকানন্দের মতাদর্শে দীক্ষিত সুভাষ ছিলেন এমন একজন ব্যক্তিত্ব , যাঁর চারিত্রিক গুণাবলী নতুন প্রজন্মের কাছে হতে পারে এক সংস্কারমুক্ত , স্বাধীন চিন্তাশক্তি দ্বারা কল্পিত একখানি সুস্থ শিক্ষা - সংস্কৃতি সম্পন্ন সমাজগঠনের চাবিকাঠি ।
কতোটা মানসিক শক্তি থাকলে , দেশ ও মানুষের জন্য কতোটা নিবেদিতপ্রাণ হলে একটি মানুষ জীবনে এতোটা ঝুঁকি নিতে দু'বার ভাবেন নি , কতোটা অকপট , কতোটা প্রশস্তহৃদয় , কতোটা বুদ্ধিমান ও মানসিকভাবে দৃঢ় এবং শুদ্ধচিত্ত হলে কেউ তাঁর জীবনে এতো বড়ো পদক্ষেপ নিতে পারে , সেটা সুভাষকে দেখে , সুভাষকে অধ্যয়ন করেই শিখবে আগামী প্রজন্ম ।
আধুনিক আমরা তখনই হই যখন তার প্রতিফলন আমাদের চিন্তাচেতনায় ধরা পড়ে । পোষাকী পরানুকরণ ও নিছক ক্যাপিটালিস্ট মাইন্ডসেট থেকে বেরিয়ে এসে কী করে আন্তরিকতা , মানবিকতা , দেশপ্রেম , আত্মমর্যাদাবোধ , বৌদ্ধিক প্রজ্ঞা ও সৃজনশীলতার বিকাশকে পাথেয় করে এক সুস্থ মনন ও চিন্তন সম্পন্ন সমাজ গঠন করা যায় , বর্তমান ও আগামী প্রজন্মের কাছে তার কাণ্ডারী হতে পারে নেতাজী সুভাষচন্দ্র বসু ।


দীপতনু চৌধুরী,ত্রিপুরা

ছবিঃ সৌজন্যে ইন্টারনেট

২৩শে জানুয়ারি ২০২০

কোন মন্তব্য নেই:

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

Post Bottom Ad

Responsive Ads Here