বাংলাদেশে করোনা প্রতিরোধে হ্যান্ডশেক কোলাকুলি পরিহারের আহ্বান - আরশি কথা

আরশিকথা ঝলক

Home Top Ad

Responsive Ads Here

Post Top Ad

Responsive Ads Here

রবিবার, ১ মার্চ, ২০২০

বাংলাদেশে করোনা প্রতিরোধে হ্যান্ডশেক কোলাকুলি পরিহারের আহ্বান

আবু আলী, ঢাকা ॥
করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ প্রতিরোধে হ্যান্ডশেক, কোলাকুলি পরিহারের আহ্বান জানিয়েছে বাংলাদেশ সরকারের রোগতত্ত্ব, রোগনিয়ন্ত্রণ ও গবেষণা প্রতিষ্ঠান- আইইডিসিআর। আক্রান্ত দেশগুলোতে দূতাবাসের মাধ্যমে প্রবাসী বাংলাদেশিদের খোঁজ নিচ্ছে আইইডিসিআর। করোনা প্রতিরোধে পরিকল্পনা চূড়ান্ত করা হয়েছে। বিদেশ থেকে কেউ দেশে আসলে তাকে কয়েক দিন হোম কোয়ারেন্টিনে থাকার পরামর্শ দিয়েছেন আইইডিসিআর। বিশ্বের বিভিন্ন দেশে করোনা ভাইরাস ছড়িয়ে পড়ায় এসব দেশ থেকে কেউ বাংলাদেশে এলে আক্রান্ত না হলেও সংক্রমণ এড়াতে এ পরামর্শ দেওয়া হয়েছে।  
১ মার্চ রবিবার করোনাভাইরাস সংক্রমণ পরিস্থিতি নিয়ে রোগতত্ত্ব, রোগ নিয়ন্ত্রণ ও গবেষণা ইনস্টিটিউটের (আইইডিসিআর) নিয়মিত সংবাদ সম্মেলনে এই পরামর্শ দেন প্রতিষ্ঠানের পরিচালক অধ্যাপক ডা. মীরজাদী সেব্রিনা ফ্লোরা।
তিনি বলেন, এখন পর্যন্ত ৫৭ দেশে করোনা ভাইরাস রোগী ধরা পড়েছে। আমাদের দেশে কোনো করোনাভাইরাস সংক্রমণ হয়নি। আমরা জানি, কেউ যদি আক্রান্ত হয়, তাহলে অন্য কোনো দেশ থেকেই সেটা আসবে বলে আমরা আশঙ্কা করছি।  ফ্লোরা আরও বলেন, বাহিরে থেকে কেউ এলে যেন হোম কোয়ারেন্টিনে থাকেন। খুব প্রয়োজন না হলে বাড়ির বাইরে বের না হন।
ডা. ফ্লোরা আরও বলেন, ‘আমরা সবাইকে পরামর্শ দিচ্ছি, যারা বাইরে থেকে আসবেন, তারা বিমানবন্দর থেকে বাসায় যাওয়ার পথে গাড়িতে মাস্ক ব্যবহার করবেন। সম্ভব হলে গণপরিবহনে না গিয়ে নিজস্ব যানবাহনে যাবেন, এ সময় পরিবহনের জানালা খোলা রাখবেন।
তিনি বলেন, ‘আপনাদের বলবো, অবশ্যই আপনারা বাড়িতে থাকুন। জনসমাগম এড়িয়ে চলুন। যদি বাইরে যাওয়া খুবই দরকার হয়, তাহলে মাস্ক ব্যবহার করবেন। আক্রান্ত হয়ে কেউ এলে বিমানবন্দরে স্ক্রিনিংয়ের মাধ্যমেই তাকে শনাক্ত করে চিকিৎসা দেওয়ার প্রস্তুতি রাখা হয়েছে বলে জানান আইইডিসিআর পরিচালক।
বিদেশ থেকে আসা কারও মধ্যে কোনো লক্ষণ দেখা দিলে আইইডিসিআরের হটলাইনে যোগাযোগের পরামর্শ দিয়েছেন তিনি।
আইইডিসিআরের মতে, করোনা প্রতিরোধে সব ধরণের প্রস্তুতি নেয়া হয়েছে। কিন্তু জনগণের অংশগ্রহণ ও সচেতনতা ছাড়া করোনা ভাইরাস প্রতিরোধ সম্ভব নয়। করোনা ভাইরাসে এ পর্যন্ত চীনে প্রাণ হারিয়েছে প্রায় ৩ হাজার মানুষ। দেশটিতে আক্রান্তের সংখ্যা প্রায় ৮০ হাজার। চীনের বাইরে ৫৭টি দেশে করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ ঘটেছে।

১লা মার্চ ২০২০


কোন মন্তব্য নেই:

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

Post Bottom Ad

Responsive Ads Here