আমি প্রজন্মের সমতা " -- জবা চৌধুরী,আটলান্টা - আরশি কথা

আরশিকথা ঝলক

Home Top Ad

Responsive Ads Here

Post Top Ad

Responsive Ads Here

রবিবার, ৮ মার্চ, ২০২০

আমি প্রজন্মের সমতা " -- জবা চৌধুরী,আটলান্টা

১৯০৯ সালে আমেরিকার সোশ্যালিস্ট পার্টির শুরু করা আন্তর্জাতিক নারীদিবস একশ বছরেরও বেশি সময় ধরে নানা পরিবর্তনের ভেতর দিয়ে চলে আজ আমরা এসে দাঁড়িয়েছি ২০২০ সালে। এ বছরের নারীদিবস উদযাপনের theme বা বিষয় হলো "I am Generation Equality" বা, "আমি প্রজন্মের সমতা" l 

আন্তর্জাতিক নারীদিবসে আমার বিনম্র শ্রদ্ধা পৃথিবীর শক্তিরূপিণী আপামর নারীদেরকে। যুগের পর যুগ ধরে যাঁদের একনিষ্ঠতার ইতিহাস -- স্বাধীনতা সংগ্রাম থেকে শুরু করে, সফল পরিবার পরিচালনা --সব ক্ষেত্রেই যে অগণিত সাফল্যের উদাহরণ রেখে চলেছেন নারীরা, তা আমাদের সকলেরই জানা। 

দেশ ভেদে আমাদের সংস্কৃতি এবং আমাদের অর্থনৈতিক অবস্থার ওপর নির্ভর করে আমাদের সমাজ গড়ে ওঠে বিভিন্ন ভাবে, বিভিন্ন রূপে। তাই প্রতিটি নারীকে একই অবস্থার ভিত্তিতে তার কাজের বিচার করা যায় না।  যে মা'র সকাল থেকে সন্ধ্যা শুধুমাত্র তার পরিবারের লোকজনের, তার সন্তানের মুখে খাবার তুলে দেবার জন্য প্রাণান্তকর পরিশ্রমে কাটে, তার পক্ষে দেশের বিশাল অর্থনৈতিক মূল্যবোধ, সংস্কৃতি এবং অন্য সব বড় বড় দিক বিচার করা সম্ভব নয়। তবে যে কোনো দেশেরই অবস্থাপন্ন পরিবারে মায়েদের ভূমিকা হয় অন্য পর্যায়ের। 

আজকের এই আন্তর্জাতিক নারীদিবসের যে কোনো রকমের উদযাপনের অন্তর্নিহিত বিষয়টি হলো, নারী-পুরুষ ভেদে সকলের প্রাপ্য অধিকারের সমতা --- তা সে অধিকার দেশের জন্য হোক, সমাজের জন্য হোক, কিংবা পরিবারের জন্য। একটি সুগঠিত সমাজ গড়তে নারী এবং পুরুষ -- দু'জনেরই সমান ভূমিকা। 

আমাদের মধ্যে অনেকেই নারীর উন্নতি নিয়ে অনেক কথা বলেন।  কিন্তু আপাতদৃষ্টিতে যেটা অনেক সময়ই চোখে পড়ে, তা হলো আমাদের কিছু ঘাটতি। মেয়েদের উন্নতির পেছনে, উৎসাহদানের পেছনে, আমরা মেয়েরাও অনেক বড় ভূমিকা নিতে পারি।  একটি স্বচ্ছল, শিক্ষিত পরিবেশ থেকে আসা একজন মেয়ে, সমাজে পিছিয়ে পড়া অন্ততঃ একটি মেয়েকে শেখাতে পারে সমাজে তার অধিকার এবং ক্ষমতা কতটুকু।  আমাদের এই অতি সামান্য সাহায্য এবং উৎসাহ একটি নারীকে অনেক উপরে তুলে দিতে পারে এবং তাকে তার জীবন যুদ্ধে সফল হতে সাহায্য করতে পারে। 

আশা, সেই দিন অনেক দূরে নেই যেদিন আমরা শিখবো নারী-পুরুষের অধিকারের সমতায় জীবন হয়ে উঠতে পারে সুন্দরতর। আর সেদিনই বিশ্বময় নারীদিবস উদযাপন হবে সার্বিক অর্থে সার্থক। 
আমার চোখে নারী শুধুমাত্র জন্মদাত্রী নয়, নারী বিশ্ব-বিধাত্রীও বটে !

ধুলোমাখা শাড়ী একান্তে নারী 
আঁচলে নিজেকে জড়ায়ে, 
রচে গৃহ-কোণে শান্তির ধুন 
গাঁথে জপমালা ত্বরায়ে। 

ভোরের আকাশে রোদের ঝিলিক 
নতুন দিনের আশায়। 
সময়ের সাথে চলা যে নারীর 
সুখে,দুঃখে আর ভালোবাসায়। 

হয়ে আঁধার গহীনে তারারা সাথী 
দেখে প্রাণভরে প্রাণ, তোমারই জয়। 
আসুক শত বাঁধা ঠেঁকাতে তোমারে 
তুমি শক্তিময়ী, তাই লাগে না ভয়। 

প্রতিবাদে ভরা প্রতিবাদী তুমি 
বুকে সংযমে ধরো ক্রোধ-নিঃশ্বাস। 
তুমি নারী তাই নিঃস্ব হওয়া ঝড়েও 
জেগে স্বপ্নেরা গড়ে প্রাণে নতুন আশ।
**** শুভ নারীদিবস****

জবা চৌধুরী,আটলান্টা 

৮ই মার্চ ২০২০
 

কোন মন্তব্য নেই:

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

Post Bottom Ad

Responsive Ads Here