বাজারে খুঁজে খুঁজে মানসিক প্রতিবন্ধীদের খাবার দিচ্ছেন ইউএনও পূরবী - আরশি কথা

আরশিকথা ঝলক

Home Top Ad

test banner

Post Top Ad

test banner

বুধবার, ১ এপ্রিল, ২০২০

বাজারে খুঁজে খুঁজে মানসিক প্রতিবন্ধীদের খাবার দিচ্ছেন ইউএনও পূরবী

প্রভাষ চৌধুরী, ঢাকা ব্যুরো এডিটর: ফরিদপুরের সদরপুরে ১০ জন মানসিক প্রতিবন্ধীকে তিন বেলা খাওয়ানোর দায়িত্ব নিয়েছেন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা(ইউএনও)পূরবী গোলদার। করোনা মোকাবিলায় যতদিন পর্যন্ত দোকানপাট বন্ধ থাকবে, তাদের খাবার ব্যবস্থা না হবে, ততদিন পর্যন্ত তাদেরকে এভাবেই খাওয়াবেন এই ইউএনও। বুধবার(০১ এপ্রিল)সদরপুর বাজারে ঘুরে ঘুরে ওই ১০ মানসিক প্রতিবন্ধীকে খাবার দেন তিনি। ফরিদপুরের সদরপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা(ইউএনও)পূরবী গোলদারের এ মানবিকতাকে দৃষ্টান্ত হিসেবে দেখছেন সদরপুরবাসী। ইউএনও পূরবী গোলদার বলেন, তারা মানসিক ভারসাম্যহীন। মাথা গোঁজার ঠাঁই নেই। নেই কোনো আত্মীয়-স্বজন। বাজার-ঘাটে বা গ্রামে গ্রামে ঘুরে বেড়ান।বাড়িতে বাড়িতে বা দোকানে ঘুরে, মানুষের কাছে হাত পেতে খাবারের যোগাড় করতে হয় তাদের।বাজারের কোনো ভবনের বারান্দায়, সিঁড়িতে, যানবাহন স্ট্যান্ডের যাত্রী ছাউনিতে অথবা দোকানের সামনের ক্রেতাদের বসার জায়গায় রাত কাটান এসব মানুষ।
তিনি বলেন, করোনা ভাইরাস সারা বিশ্বে ছড়িয়ে পড়েছে। এই ভাইরাসের থাবা থেকে রক্ষা পায়নি বাংলাদেশও।করোনা থেকে দেশের মানুষকে রক্ষায় জরুরি সেবা ছাড়া সবকিছু বন্ধ ঘোষণা করেছে সরকার। প্রধানমন্ত্রীর সহায়তা পৌঁছে দেওয়া হচ্ছে গ্রামে গ্রামে কর্মহীন মানুষের কাছে।কিন্তু এইসব মানসিক ভারসাম্যহীন(পাগল)মানুষের কাছে সাধারণত খাবার পৌঁছে না। এই মুহূর্তে কারো বাড়িতেও তাদেরকে ঢুকতে দেওয়া হচ্ছে না। দোকান বন্ধ থাকায় দোকান থেকেও খাবার চেয়ে খেতে পারছে না।খুবই কষ্টে কাটছে তাদের জীবন। এই কষ্টটা অনুভব করতে পেরে আমি এই উদ্যোগ নিয়েছি। ইউএনও পূরবী গোলদার বলেন, সবাইকে একসাথে পাওয়া কঠিন। তাই বাজারের বিভিন্ন জায়গায়(যেসব পয়েন্টে তারা থাকে)ঘুরে তাদেরকে খুঁজে খাবারগুলো বিতরণ করেছি। আমরা সকাল ও দুপুরে রুটি, কলা, কেক, বিস্কিট, কমলা ও পানি দেব। আর রাতে ভাত খাওয়ানোর ব্যবস্থা করা হবে। এই ১০ জনের অধিকাংশই রাতে উপজেলা পরিষদ ভবনের বারান্দায় থাকে। তাই, রাতে হোটেল থেকে ভাত এনে তাদেরকে খাওয়াব।

১লা এপ্রিল ২০২০

কোন মন্তব্য নেই:

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

Post Bottom Ad

test banner