এডিসি নির্বাচন আগামী ৪ এপ্রিলঃ ত্রিপুরা - আরশি কথা

আরশিকথা ঝলক

Home Top Ad

test banner

Post Top Ad

test banner

বুধবার, ৩ মার্চ, ২০২১

এডিসি নির্বাচন আগামী ৪ এপ্রিলঃ ত্রিপুরা

নিজস্ব প্রতিনিধি,আগরতলা, আরশিকথাঃ


অবশেষে ঘোষিত হল বহু প্রতীক্ষিত ত্রিপুরা উপজাতি এলাকা স্ব-শাসিত জেলা পরিষদের(এডিসি) নির্বাচনের দিনক্ষণ। আগামী ৪ এপ্রিল অনুষ্ঠিত হবে নির্বাচন। স্টেট ইলেকশন কমিশনার ফর ডিস্ট্রিক্ট কাউন্সিল মানিক লাল দে নির্বাচনের নির্ঘণ্ট ঘোষণা করেন। নির্ঘণ্ট অনুযায়ী মনোনয়নপত্র জমা দেওয়ার শেষ দিন ১২ মার্চ। মনোনয়নপত্রগুলি পরীক্ষা করে দেখা হবে ১৫ মার্চ। মনোনয়নপত্র প্রত্যাহারের শেষ দিন ১৭ মার্চ। ৪ এপ্রিল সকাল সাতটা থেকে ভোট গ্রহণ শুরু হবে এবং তা চলবে বিকেল ৪ টা পর্যন্ত। যদি ফের ভোট গ্রহণের প্রয়োজনীয়তা দেখা দেয় তবে পুনরায় ভোট গ্রহণের দিন ধার্য হয়েছে ৭ এপ্রিল। ১৩ এপ্রিল এর মধ্যে সমস্ত নির্বাচনী প্রক্রিয়ার কাজ সম্পন্ন করা হবে। ভোটগ্রহণের তারিখ ঘোষণার সঙ্গে সঙ্গেই এলাকায় আদর্শ আচরণ বিধি লাগু হয়ে গেছে। শ্রী দে জানিয়েছেন,সুষ্ঠু এবং অবাধ নির্বাচনের জন্য রাজ্য নির্বাচন কমিশন থেকে প্রয়োজনীয় সমস্ত রকম ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে। আট জেলার জেলাশাসক ও সমাহর্তাগণ হচ্ছেন ডিস্ট্রীক্ট ইলেকশন অফিসার (ডি ই ও)।এদিকে এলাকার অন্তর্ভুক্ত ষোলটি মহকুমার মহকুমা শাসক রিটার্নিং অফিসারের দায়িত্ব পালন করবেন। তিনি জানান, স্ব-শাসিত জেলা পরিষদের নির্বাচন ক্ষেত্র ২৮ টি। এর মধ্যে ২৫ টি নির্বাচনী ক্ষেত্র তপশিলি উপজাতি সংরক্ষিত, বাকি তিনটি অসংরক্ষিত। এবছর জেলা পরিষদের নির্বাচন ৮ লক্ষ ৬৫ হাজার ৪১ জন ভোটার রয়েছেন। এর মধ্যে পুরুষ ভোটার রয়েছেন ৪ লক্ষ, ৩৬ হাজার, ৫৪৮ জন। এবং মহিলা ভোটার ৪ লক্ষ, ২৮ হাজার, ৪৯০ জন। অন্যান্য ৩ জন।কোভিড পরিস্থিতির কারণে এবারের নির্বাচনে ভোটগ্রহণ কেন্দ্রের সংখ্যা বাড়ানো হয়েছে। মোট ১,২৪৪টি ভোটগ্রহণ কেন্দ্রের ভোটগ্রহণ করা হবে। গড়ে প্রায় 1 হাজার ভোটার নিয়ে এক একটি ভোট গ্রহণ কেন্দ্র করা হয়েছে।পূর্বে যেখানে ভোটগ্রহণ কেন্দ্রের ভোট দিতে পারতেন। ভোটগ্রহণ হবে ইভিএম এর মাধ্যমে।এক্ষেত্রে কোন ভিভিপ্যাটের ব্যবস্থা থাকবে না বলে জানিয়েছেন নির্বাচন কমিশনার শ্রী দে। মনোনয়নপত্র জমা, পরীক্ষা-নিরীক্ষা, প্রত্যাহার এবং ভোট গণনা সমস্ত প্রক্রিয়াটি ভিডিওগ্রাফির ব্যবস্থা থাকবে বলে তিনি উল্লেখ করেন। তিনি আরো জানান ১৬টি মহকুমা সদরে ৮ এপ্রিল সকাল আটটা থেকে ভোট গণনা শুরু হবে।অবাধ ও সুষ্ঠুভাবে নির্বাচন পরিচালনার জন্য ইতিমধ্যেই কমিশন পৃথক পৃথকভাবে জাতীয় এবং রাজ্য স্তরের স্বীকৃতি ও রাজনৈতিক দলগুলির প্রতিনিধিদের সঙ্গে আলোচনা করেছে। কোভিড-১৯ গাইডলাইন মানার জন্য মনোনয়নপত্র জমা দেওয়ার সময় প্রার্থী সংখ্যা সর্বাধিক দুইজন থাকতে পারবেন এবং দুটি হালকা যান ব্যবহার করতে পারবেন। নির্বাচনপর্ব সুষ্ঠু, অবাধ ও শান্তিপূর্ণভাবে সম্পন্ন করার জন্য প্রার্থী, রাজনৈতিক দল এবং জনগণের একান্ত সহযোগিতা কামনা করেছে রাজ্য নির্বাচন কমিশন।পাশাপাশি স্বাস্থ্য ও রাজস্ব দপ্তর যৌথভাবে যে কোভিড  গাইডলাইন প্রণয়ন করেছে তা যথাযথভাবে মেনে চলতেও নির্বাচন কমিশন আহ্বান রেখেছে।


আরশিকথা ত্রিপুরা সংবাদ

৩রা মার্চ ২০২১


 

কোন মন্তব্য নেই:

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

Post Bottom Ad

test banner