জনকনন্দিনী" -- -জ্যোস্মিতা দেব্বর্মণ, ত্রিপুরা

জনকনন্দিনী"


জিজ্ঞাসো…..স্বপ্ন দেখি কিনা ? 

না, তা আমি যে আর দেখি না । 

হ্যাঁ দেখতাম কখনো বা !

চিলে কোঠার পায়রার মতো,

ঘর যে, আমিও বুনতাম ।

আবার কখনো শঙ্খচিলের 

ডানায় দিয়ে ভর

উড়তাম আকাশ পানে,

ছিল না ভয়ডর।

এমনি দিনে ডাকলো সে যে

নিয়ে বরণ ডালা।

রাজপুরীতে বাজলো সানাই

পরালো পুষ্পমালা ।

মিথ্যে ছিল সে ডাকে তার

ছলনাতে ভরা !

লোকলজ্জা, স্বার্থ আর অহঙ্কারে গড়া ।

খুঁজেছিলাম সেদিন তাঁর মানবিক সত্ত্বাকে,

সে বেসেছিল ভালো শুধু

আমার সৌন্দর্যতাকে ।

মনে ছিল যে তাঁর সন্দেহের মেঘ।

প্রশ্ন করেছিল ছিন্ন করে ভাবাবেগ ।

বুঝেনি হায় ছিল আমার এরূপ আত্মার ।

মিশেছিল যা একাকার হয়ে বিশ্ব পরমাত্মার ।

আগুনে জ্বলুক এই রূপ আমার

জুড়াক অপমান, অবিশ্বাসের জ্বালা।

নিভুক আজ এই জীবনবাতি

এবার ঘরে ফেরার পালা ।

এমনি সময়ে শুনলাম তাঁর,

অমোঘ, অমর শ্বাশ্বত বাণী,

“ যা কিছু তোর, সব আমারই গরিমা

করবে  কে তোকে কলঙ্কীনি?”

দু’আঁখি পরে বারিধারা ঝরে!

গর্ভধারিণী আমার, হে ধরিত্রী মাতা 

রেখো ধরে হৃদয়ের পরে,

আমি যে চির নির্বাসিতা ।।


-জ্যোস্মিতা দেব্বর্মণ 

ত্রিপুরা


১৪ই নভেম্বর ২০২১

 

Post a Comment

নবীনতর পূর্বতন