অর্থ ও যশ বৃদ্ধিতে চুনি রত্নের প্রভাব - আরশি কথা

আরশিকথা ঝলক

Home Top Ad

Responsive Ads Here

Post Top Ad

Responsive Ads Here

মঙ্গলবার, ২২ মে, ২০১৮

অর্থ ও যশ বৃদ্ধিতে চুনি রত্নের প্রভাব

জ্যোতিষ শাস্ত্রমতে গ্রহরত্ন রত্নবিশেষজ্ঞ দ্বারা বিচার করেই ধারণ করা উচিত। নানা প্রকারের রত্নে শুভ অশুভ ভাব থাকে। তাই রত্নের উপকারিতা,জাতি এবং বর্ণ পরীক্ষা ইত্যাদির মাধ্যমে বিচার করে কিভাবে বিধিসম্মত উপায়ে ধারণ করা উচিত সেই বিষয়ে কিছু তথ্য আরশি কথা'য় তুলে ধরা হল। 
আজ আমরা রবিগ্রহের রত্ন মানিক্য বা চুনি যার ইংরেজি নাম  RUBY -র বিষয়ে কিছু তথ্য তুলে ধরছি।
 রবিগ্রহের রত্ন হচ্ছে মানিক্য। বিশুদ্ধ মানিক্য রত্ন খুব দুষ্প্রাপ্য এবং দুর্মূল্য। সেই কারণে অধিকাংশ ক্ষেত্রেই চুনি রত্নটি এর পরিবর্তে ব্যবহৃত হয়ে থাকে। এই রত্নটিকে  সংস্কৃত ভাষায় সূর্যকান্ত মণি বলা হয়ে থাকে। যদি এই মণিটির রঙ প্রস্ফুটিত পদ্মফুলের মতো হয় তাহলে তাকে পদ্মবাগ মণি অথবা মানিক বলা হয়ে থাকে। 
বিশুদ্ধ পদ্মবাগ মণি ধারণ করলে খুব শীঘ্রই ফল পাওয়া যায়। এছাড়াও নানা বর্ণে এই মণি পাওয়া যায়। জবা ফুলের মতো লালা বর্ণের মণিকে বলে কুরু বিন্দ চুনিতেমনি ভোরের প্রথম সূর্যের মতো বর্ণ হলে তাকে বলা হয় সৌগন্ধিক চুনি এবং নীলাভ বর্ণের হলে নীল গন্ধিক বলে।  নীল গন্ধিক চুনি বিলম্বে ফলদান করে। 
 জ্যোতিষ শাস্ত্রমতে চুনি রত্ন ধারন করলে অর্থ, যশ এবং বুদ্ধি বৃত্তি বাড়ে এবং খুব নাম খ্যাতি লাভ হয়। রবিগ্রহ নিচস্থ স্থানে অবস্থান করলে এর কুফল থেকে চুনি রত্ন রক্ষা করে।
 চুনি নির্মল লাল বর্ণ কিংবা গোলাপী নীলবর্ণের ধারণ করলে ভালো ফল পাওয়া যায়। স্বচ্ছ এবং উজ্জ্বল রঙের দাগহীন চুনিই ধারণ করা উচিত।
তথ্যঋণঃ সংগৃহীত
ছবিঋণঃ ইন্টারনেট হইতে সংগৃহীত 
২২শে মে ২০১৮ইং     

কোন মন্তব্য নেই:

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

Post Bottom Ad

Responsive Ads Here