"করোনা মুক্তির বিজ্ঞান ভিত্তিক উপায়" ঃ তপন দত্ত,মেডিকেল নিউট্রিশনিষ্ট,দিল্লী - আরশি কথা

আরশিকথা ঝলক

Home Top Ad

Responsive Ads Here

Post Top Ad

Responsive Ads Here

সোমবার, ২৭ জুলাই, ২০২০

"করোনা মুক্তির বিজ্ঞান ভিত্তিক উপায়" ঃ তপন দত্ত,মেডিকেল নিউট্রিশনিষ্ট,দিল্লী

করোনা বিশ্বমহামারীতে সমগ্র পৃথিবীর আজ দিশাহারা | প্রতিটি দেশে মৃত্যু মিছিল বেড়েই চলেছে | তার সাথে পাল্লা দিয়ে চলেছে করোনার প্রতিষেধক আবিষ্কারের গবেষনা | টিভি আর খবরের কাগজে সুধুমাত্র করোনার পরিসংখান | সমগ্র বিশ্ববাসী ভিত সন্ত্রস্ত |

আমি একজন মেডিকেল নিউট্রিশনিষ্ট হওয়ার সুবাদে, আরশিকথার সকল শুভাকাঙ্খী সহ সবার সুস্থতা রক্ষা করাটা আমার এক নৈতিক দায়িত্ব মনে করি | তাই এই প্রতিবেদনের  মাধ্যমে মাত্র ৩/৪ দিনে শুধু খাবার পরিবর্তন করে করোনার প্রকোপ থেকে কি করে রক্ষা পাওয়া যায় তার সহজ সমাধান জানানোর  আগে কয়েকটি বিষয়ে আপনাদের আলোকপাত করছি | 
১ | করোনা কোন ভয়ানক ভাইরাস না, তা সম্পুর্ণ আমাদের সাধারন সর্দি কাঁশি জ্বরের ভাইরাস |
২ | ভাইরাস কখনো কাউকে মারতে পারে না, মানুষ মারা যায় তার দুর্বল প্রতিরোধ ক্ষমতার কারনে |
৩ | আমাদের নিজস্ব প্রতিরোধ ক্ষমতাকে শক্তিশালী রাখাটাই ভাইরাসের আক্রমন থেকে মুক্তির একমাত্র উপায় |
৪ | এই পৃথিবীতে একমাত্র প্রকৃতির দেওয়া খাদ্যপদার্থ ই পারে আমাদের প্রতিরোধ ক্ষমতাকে শক্তিশালী রাখতে |
৫ | শরীরে যে কোন ভাইরাস  তা সে করোনা ই হোক না কেন, প্রবেশের সাথে সাথে শরীরের নিজস্ব প্রতিরোধ ক্ষমতা সক্রিয় হয়ে উঠে এবং জ্বর দেখা দেয় সেই ভাইরাসটিকে মারার জন্য।
৬ | সেই অবস্থায় যদি আমরা প্যারাসিটামল জাতীয় টেবলেট খাই তবে জ্বর কমে যাবে আর সাথে সাথে ভাইরাসটি  সক্রিয় হয়ে আমাদের ফুসফুসে পৌছে যাবে | আর সেটাই হচ্ছে সর্বনাশের কারন | 

তাই যখনই সর্দি, কাঁশি, জ্বর, হাত পা ব্যাথা, মাথা ব্যাথা বা স্বাদ গন্ধ না পাওয়া ইত্যাদির কোন একটি লক্ষণ আপনারা অনুভব করবেন, তা সে করোনার কারনেই হোক বা সাধারন ইনফ্লুয়েঞ্জা, সাথে সাথে কোন প্রকারের ঔষধ না খেয়ে নিম্নলিখিত ৩ (তিন) দিনের ফ্লু ডায়েট নিতে শুরু করুন |

প্রথম দিনের ডায়েট -
আপনার ওজন (কিগ্রা) ÷ ১০ = __ গ্লাস (৪০০ মিলি) ডাবের জল এবং তত গ্লাস মুসাম্বি বা কমলা বা আনারস এর জুস(ছিবড়া সহ) | খাওয়ার নিয়ম- প্রতি গ্লাস ১৫ মিনিট সময় নিয়ে খেতে হবে খুব ধীরে ধিরে |

দ্বিতীয় দিনের ডায়েট -
আপনার ওজন (কিগ্রা) ÷ ২০ = __ গ্লাস (৪০০ মিলি) ডাবের জল এবং তত গ্লাস মুসাম্বি বা কমলা বা আনারস এর জুস(ছিবড়া সহ) | তার সাথে
আপনার ওজন × ৫ = __ গ্রাম শশা এবং টমেটো |

তৃতীয় দিনের ডায়েট -
ব্রেকফাস্ট - আপনার ওজন (কিগ্রা) ÷ ৩০ = __ গ্লাস (৪০০ মিলি) ডাবের জল এবং তত গ্লাস মুসাম্বি বা কমলা বা আনারস এর জুস(ছিবড়া সহ) |

# লাঞ্চ - আপনার ওজন × ৫ = __ গ্রাম শশা এবং টমেটো |

# ডিনার - ঘরের পাতলা খিচুরি | 

এই ৩ দিনের ডায়েটে আপনার শরীরের সব লক্ষণ দুর হয়ে যাবে, তারপর ও কিছুটা দুর্বলতা থাকলে ব্রেকফাস্টে ফলের জুস খাবেন |

যদি জ্বর ১০৩ ডিগ্রির উপরে উঠে তবে এই ডায়েটের পাশাপাশি কপালে এবং পায়ের কাফ্ মাসল্ এ ঠান্ডা জলের প্রলেপ দিতে থাকবেন | 

তারপর ও যদি কখনো কোন প্রয়োজন পরে আমার ৮৩৭৭০৪৪৫৬৪ বা ৯৯৯৯৬৪৭৯০২ নম্বরে যোগাযোগ করতে পারেন | করোনা প্রতিরোধের জন্য এই উদ্দ্যোগ সম্পুর্ণ নি:শুল্ক | 
সকলের প্রতি আমার একটাই অনুরোধ, করোনা কে ভয় পাবেন না, তার সাথে লড়াই করার জন্য ৩ দিনই যথেষ্ট | ঘরে থেকে ঔষধ আর ডাক্তার ছাড়া সম্পুর্ণ সুস্থ হয়ে উঠুন, আর একটি দৃষ্টান্ত স্থাপন করুন যে করোনা কোন মহামারী নয় | আপনাদের সুস্থতার অভিজ্ঞতা "আরশি কথা"র মাধ্যমে শেয়ার হলে আরও অনেকের মানসিক শক্তি বৃদ্ধি করবে আশা রাখি |



তপন দত্ত,দিল্লী
মেডিকেল নিউট্রিশনিষ্ট
২৭শে জুলাই ২০২০

কোন মন্তব্য নেই:

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

Post Bottom Ad

Responsive Ads Here