প্রধানমন্ত্রী ফসল বীমা যোজনার প্রচার ভ্যানের সূচনা করলেন মুখ্যমন্ত্রী ঃ ত্রিপুরা - আরশি কথা

আরশিকথা ঝলক

Home Top Ad

test banner

Post Top Ad

test banner

বৃহস্পতিবার, ১ জুলাই, ২০২১

প্রধানমন্ত্রী ফসল বীমা যোজনার প্রচার ভ্যানের সূচনা করলেন মুখ্যমন্ত্রী ঃ ত্রিপুরা

নিজস্ব প্রতিনিধি,আগরতলা,আরশিকথাঃ


সমগ্র দেশের মধ্যে ত্রিপুরায় সবচেয়ে বেশি কৃষক ফসল বীমা যোজনার আওতায় এসেছেন। শুধুমাত্র বিমা করানোই নয়, ক্ষতিগ্রস্ত কৃষকরা সঠিক সময়ে ক্ষতিপূরণের টাকা পাচ্ছেন কিনা সে বিষয়েও গুরুত্ব দিতে হবে। বৃহস্পতিবার সচিবালয় প্রাঙ্গণে ফসল বীমা সপ্তাহের প্রচার ভ্যানের যাত্রা শুরু করে একথা বলেন মুখ্যমন্ত্রী বিপ্লব কুমার দেব। সমগ্র দেশের সাথে রাজ্যের প্রধানমন্ত্রী ফসল বীমা যোজনার ব্যাপক প্রচারের লক্ষ্যে এই প্রচার ভ্যানের সূচনা হয়েছে। পতাকা নেড়ে এই কর্মসূচির সূচনা করেন মুখ্যমন্ত্রী বিপ্লব কুমার দেবসহ অন্যান্য অতিথিরা।

মুখ্যমন্ত্রী বলেন, কৃষকদের আয় দ্বিগুণ করার লক্ষ্যে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির মার্গ দর্শনের কাজ করছে কেন্দ্রীয় সরকার। অক্টোবর মাস থেকেই বর্ধিত ১৯ টাকা ৪০ পয়সা দরে সহায়ক মূল্য কৃষকদের কাছ থেকে ধান কেনার প্রক্রিয়া শুরু হবে। একটা সময়ে যেখানে মানুষের বীমা পর্যন্ত করা হতো না বর্তমানে নরেন্দ্র মোদীর নেতৃত্বে ফসলের পর্যন্ত বীমা করা হচ্ছে। ইতিমধ্যেই রাজ্যের ৮০ শতাংশ কৃষক ফসল বীমার আওতায় এসেছে। কৃষকরা আমাদের অন্নদাতা। তাদের সুরক্ষিত রাখতেই এই উদ্যোগ। তবে শুধুমাত্র বীমার আওতায় আনলেই হবে না, ক্ষতিগ্রস্থ কৃষকরা তাদের ফসলের সঠিক ক্ষতিপূরণ পাচ্ছে কিনা সে বিষয়ে লক্ষ্য রাখতে হবে।
মুখ্যমন্ত্রী বলেন রাজ্যে ৩৪ হাজার ৮০০ কৃষক ফসলের ফসলের ক্ষতিপূরণ বাবদ প্রায় আড়াই কোটি টাকা পেয়েছেন। ক্ষতিগ্রস্ত কৃষকদের ব্যাংক একাউন্টে সরাসরি এই অর্থ পাঠানো হয়েছে। মুখ্যমন্ত্রী বলেন, কৃষকদের আয় দ্বিগুণ করার যে লক্ষ্যমাত্রা কেন্দ্রীয় সরকার নিয়েছে, নির্ধারিত সময়ের আগেই এই লক্ষ্যমাত্রা পূরণে লক্ষ্যে কাজ করে করছে রাজ্য সরকার।
অনুষ্ঠানে কৃষিমন্ত্রী প্রণজিৎ সিংহ রায় বলেন, কৃষকরা যেন ক্ষতির সম্মুখীন না হয় তার জন্য এই ফসল বীমা কর্মসূচিকে আরো বৃহৎ পরিসরে বাস্তবায়িত করার উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে।
রাজ্যের প্রতিটি জেলা এবং মহকুমায় সাত দিনব্যাপী এই প্রচার গাড়ির মাধ্যমে ফসল বীমার সুযোগ এবং সুবিধা সম্পর্কে জনজাগরণ তৈরি করা হবে। সরকার দায়িত্বভার গ্রহণ করার পর মুখ্যমন্ত্রীর নির্দেশিত পথে রাজ্যের তিনগুণ বেশি কৃষকদের ফসল বীমার আওতায় আনা হয়েছে। বীমা যোজনা চালু করে আরো বেশি সংখ্যায় কৃষকদের বীমার আওতায় আনার উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে। যে বীমার অধিকাংশ অর্থ বহন করছে রাজ্য সরকার। অনুষ্ঠানে অন্যান্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন কৃষি ও কৃষক কল্যাণ দপ্তরের সচিব সি কে জমাতিয়া।


আরশিকথা ত্রিপুরা সংবাদ


ছবিঃ সুমিত কুমার সিংহ

১লা জুলাই ২০২১
 

কোন মন্তব্য নেই:

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

Post Bottom Ad

test banner