মাটির তৈরি কাপের ব্যবহার বাড়লে রাজ্যের মৃৎশিল্পীদের রোজগার বাড়বে : মুখ্যমন্ত্রী, ত্রিপুরা - আরশি কথা

আরশিকথা ঝলক

Home Top Ad

test banner

Post Top Ad

test banner

মঙ্গলবার, ১০ আগস্ট, ২০২১

মাটির তৈরি কাপের ব্যবহার বাড়লে রাজ্যের মৃৎশিল্পীদের রোজগার বাড়বে : মুখ্যমন্ত্রী, ত্রিপুরা

নিজস্ব প্রতিনিধি,আগরতলা,আরশিকথাঃ


প্রধানমন্ত্রীর নরেন্দ্র মোদির আহ্বানে স্বচ্ছ ভারতের ভাবনায় সুস্থ ও নির্মল ত্রিপুরা গড়ার লক্ষ্যে কাজ করছে সরকার। রাজ্যে প্লাস্টিকের ব্যবহার হ্রাস করে পরিবেশবান্ধব বিকল্প পণ্যের ব্যবহারিক প্রয়োগ বাড়াতে বিশেষ উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে। মঙ্গলবার সুকান্ত একাডেমিতে খাদি গ্রামোদ্যোগ পর্ষদের উদ্যোগে আগরতলা পুর নিগমের আর্থিক সহায়তা বিক্রেতাদের মধ্যে বিনামূল্যে মাটির চায়ের কাপ বিতরণী অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখতে গিয়ে একথা বলেন মুখ্যমন্ত্রী বিপ্লব কুমার দেব।


মুখ্যমন্ত্রী বলেন, প্লাস্টিকের বদলে মাটির পাত্র ব্যবহার অনেক বেশি পরিবেশবান্ধব।
একটা সময় মাটির তৈরি বিভিন্ন পাত্র অধিক মাত্রায় ব্যবহার হলেও প্রাকৃতিক নিয়মেই নানা বিবর্তনের মাধ্যমে অন্যান্য ধাতব ও প্লাস্টিক পাত্রে ব্যবহার বেড়েছে। এই কর্মসূচিতে আগরতলা পুরনিগম ও তার নিকটবর্তী এলাকায় চা বিক্রয় করেন এমন ৩০০ জন স্ট্রীট ভেন্ডারদের মধ্যে এক লক্ষ মাটির তৈরি কাপ বিতরণ করা হবে।
ভোকাল ফর লোকালের ভাবনায় মাটির তৈরি কাপের ব্যবহার বাড়লে রাজ্যের মৃৎশিল্পীদের রোজগার বাড়বে। তেমনি আর্থিক সমৃদ্ধিও হবে। পাশাপাশি প্লাস্টিকের নেতিবাচক প্রভাব থেকে পরিত্রাণ পাবে এই প্রকৃতি।
মৃৎশিল্পীদের রোজগার সুনিশ্চিত করার লক্ষ্যে মাটির কাপ এর চাহিদা অনুসারে সমগ্র রাজ্যের মৃৎশিল্পীদের মধ্যে সেই কাজ বিকেন্দ্রীকরণের উপর গুরুত্ব আরোপ করেন মুখ্যমন্ত্রী।
এদিনের অনুষ্ঠানে উপস্থিত চা বিক্রেতাদের হাতে মাটির তৈরি কাপ তুলে দেন মুখ্যমন্ত্রী বিপ্লব কুমার দেব। মুখ্যমন্ত্রী বলেন, অর্থনৈতিকভাবে দ্রুতগতিতে উন্নয়নশীল রাজ্যগুলির মধ্যে অন্যতম ত্রিপুরা।
ন্যায়, নীতি নিয়ত নিয়ে রাজ্যের নাগরিকদের সর্বাঙ্গীণ কল্যাণে কাজ করছে সরকার। সঠিক ব্যবস্থাপনার মাধ্যমে প্রাথমিক ক্ষেত্রের উন্নয়নের মাধ্যমে গ্রামীণ অর্থনীতির বিকাশে বিশেষ গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা নেওয়া হয়েছে। কৃষকদের আর্থিক মানোন্নয়নের লক্ষ্যে কেন্দ্রীয় ও রাজ্য সরকারের গৃহীত বিভিন্ন প্রকল্পগুলির সুফল পাচ্ছেন রাজ্যের কৃষকরা। এর ফলে বেড়েছে কৃষকদের গড় আয়। প্রায় সমস্ত ক্ষেত্রেই উন্নয়নের নিরিখে সাফল্য এসেছে।


অনুষ্ঠানে অন্যান্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন খাদি ও গ্রামোদ্যোগ পর্ষদের চেয়ারম্যান রাজিব ভট্টাচার্য, শিল্প-বাণিজ্য দপ্তরের সচিব পি কে গোয়েল এবং দপ্তরের অধিকর্তা টি কে চাকমা।


আরশিকথা ত্রিপুরা সংবাদ


ছবিঃ সুমিত কুমার সিংহ

১০ই আগস্ট ২০২১
 

কোন মন্তব্য নেই:

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

Post Bottom Ad

test banner