সমবায় কর্মসংস্থান সৃষ্টির অন্যতম মাধ্যম : সমবায় মন্ত্রী, ত্রিপুরা

নিজস্ব প্রতিনিধি,আগরতলা,আরশিকথাঃ


সমবায় কর্মসংস্থান সৃষ্টির অন্যতম মাধ্যম। গ্রামীণ মানুষের আর্থ সামাজিক মান উন্নয়নে উল্লেখযোগ্য ভূমিকা নিতে পারে সমবায়। ৬৮তম অখিল ভারত সমবায় সপ্তাহ উদযাপন উপলক্ষে মঙ্গলবার উত্তর ত্রিপুরা জেলার ধর্মনগর মহকুমার হাফলংস্থিত চিন্তালহর সদনে এক আলোচনাচক্রের উদ্বোধন করে একথা বলেন সমবায়মন্ত্রী রামপ্রসাদ পাল। আলোচনাচক্রের উদ্বোধন করে তিনি বলেন, সমবায়ের সাথে যুক্ত হয়ে যারা গ্রামীণ এলাকায় কাজের সুযোগ তৈরি করছেন তাদের কাজের মূল্যায়ন করা, কাজ করতে গিয়ে তাদের কি ধরনের অসুবিধার সম্মুখীন হচ্ছেন সে সম্পর্কে আলোকপাত করার লক্ষ্যেই এ ধরনের আলোচনাচক্র সারা রাজ্যে অনুষ্ঠিত হচ্ছে।


জেলাভিত্তিক এই অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখতে তিনি আরও বলেন, সমবায় রাজ্যের মানুষের আর্থসামাজিক মান উন্নয়নে বিরাট ভূমিকা নিতে পারে। রাজ্যের প্রতিটি গ্রাম পঞ্চায়েতে সমবায় সমিতি নতুনভাবে গড়ে তোলার উপর গুরুত্বারোপ করেন তিনি। সমবায়মন্ত্রী আরও বলেন, রাজ্যের রুগ্ন বা দুর্বল সমবায়গুলিকে কিভাবে লাভজনক করা যায় সেই দিকে নজর দিতে হবে সমবায় দপ্তরকে। আলোচনাচক্রে প্রধান অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন বিধানসভার উপাধ্যক্ষ বিশ্ববন্ধু সেন। সভাপতিত্ব করেন উত্তর ত্রিপুরা জিলা পরিষদের সভাধিপতি ভবতোষ দাস। স্বাগত বক্তব্য রাখেন সমবায় দপ্তরের উপনিয়ামক নিখিল রঞ্জন চক্রবর্তী। উপস্থিত ছিলেন ত্রিপুরা সমবায় ব্যাঙ্ক লিমিটেডের বোর্ড অব ডিরেক্টর মলিনা দেবনাথ, উত্তর ত্রিপুরা জেলার অতিরিক্ত জেলাশাসক ধনবাবু রিয়াং প্রমুখ। অনুষ্ঠানে হাফলং প্যাকসের উদ্যোগে দুটি জয়েন্ট লাইয়েবিলিটি গ্রুপ (জে এল জি)কে ঋণ দেওয়া হয়।
সমবায়মন্ত্রী জয়েন্ট লাইয়েবিলিটি গ্রুপের সদস্যদের হাতে চেক তুলে দেন। তাছাড়াও সমবায় সপ্তাহ উদযাপন উপলক্ষে আয়োজিত প্রবন্ধ প্রতিযোগিতার বিজয়ীদের হাতে শংসাপত্র ও ট্রফি তুলে দেন অনুষ্ঠানের অন্যান্য অতিথিরা।


আরশিকথা ত্রিপুরা সংবাদ


ছবিঃ সংগৃহীত

১৬ই নভেম্বর ২০২১
 

Post a Comment

নবীনতর পূর্বতন