কাঁটা তারের বেড়া"......আরশি কথা'র অতিথি কলামে ড দেবব্রত দেবরায়ের অনুভব - আরশি কথা

আরশিকথা ঝলক

Home Top Ad

test banner

Post Top Ad

test banner

শনিবার, ৮ সেপ্টেম্বর, ২০১৮

কাঁটা তারের বেড়া"......আরশি কথা'র অতিথি কলামে ড দেবব্রত দেবরায়ের অনুভব

ভারত বাংলাদেশ সীমান্তে কাঁটাতারের বেড়া দুদেশের মাটিকে সাময়িক ভাগ করতে পারলেও দুদেশের মানুষের হ্রদয়কে ভাগ করতে পারেনি ।ভারত বাংলাদেশের মানুষের কাছে কাঁটাতারের বেড়া যেনো দিনে দিনে অপাংক্তেয় হয়ে পড়ছে । দুটি দেশের লেখক কবি শিল্পী সাহিত্যিক বুদ্ধিজীবী সমাজসেবী যেভাবে পারস্পরিক সম্পর্কের মেলবন্ধনের ভিত্তিতে একাত্মতা অনুভব করছেন তাতে কাঁটাতারের বেড়া যেনো দিন দিন গুরুত্বহীন হয়ে পড়েছে ।
বিশেষ করে ত্রিপুরার সঙ্গে বাংলাদেশের মানুষের যে অভিন্ন হ্দয় সম্পর্ক গড়ে উঠেছে তা সত্যিই আমাদেরকে দারুণ ভাবে প্রাণিত করছে । আমরা লক্ষ্য করছি বাংলাদেশের মানুষের আনন্দে ত্রিপুরার মানুষও আনন্দ অনুভব করছেন । অন্যদিকে বাংলাদেশের মানুষের কষ্টে ত্রিপুরার জনগণ ব্যথা অনুভব করছেন । ভারত ও বাংলাদেশ বর্তমানে দুটো পৃথক রাষ্ট্র হওয়া সত্বেও এই যে একাত্মতা অনুভব করা এটাই হলো আন্তর্জাতিকতা ।

এই আন্তর্জাতিক বোধ শুরু হয়েছিল একাত্তরের মহান মুক্তিযুদ্ধের সময় থেকে । তখন ত্রিপুরার লোক সংখ্যা ছিল মাত্র পনেরো ষোল লক্ষ । আরো পনেরো ষোল লক্ষ মানুষ সেদিন অরন্যদুহিতা শ্যামলী ত্রিপুরাতে এসে উঠেছিলেন নিরুপায় হয়ে । ভারত সরকার ত্রিপুরা সরকার সেদিন যেমন তাদের আশ্রয় দিয়েছিলেন তেমনি ত্রিপুরার মানুষও সেদিন তাদের আন্তরিক ভাবেই বুকে জড়িয়ে ধরেছিলেন ।

সেই থেকে শুরু । একদিকে শ্রীমতী ইন্দিরা গান্ধী এবং ভারত সরকার ও ভারতীয় সেনাবাহিনীর সার্বিক সহযোগিতা আর অন্যদিকে মহান মুক্তিযুদ্ধে ত্রিপুরার মানুষের আন্তরিক সমর্থন ও অংশগ্রহণ এই মেলবন্ধনকে দৃঢ় ভিত্তির উপর দাঁড় করাতে সহায়ক হয়েছে । মুক্তিযুদ্ধের স্মৃতিকে বহন করে গত প্রায় অর্ধশত বছর ধরে এই মেলবন্ধন ক্রমশ বৃদ্ধি পেয়ে চলেছে । দুই দেশের এই মৈত্রীর বন্ধনের মূল ভিত্তি হিসেবে কাজ করে চলেছে সংস্কৃতি । এককথায় সংস্কৃতির অসীমান্তিক শক্তির কাছে ক্রমশঃ ক্রমশই গৌন হয়ে পড়েছে কাঁটা তারের বেড়া ।

ড দেবব্রত দেবরায়, শিক্ষাবিদ
আগরতলা, ত্রিপুরা

৮ই সেপ্টেম্বর ২০১৮ইং

কোন মন্তব্য নেই:

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

Post Bottom Ad

test banner