বঙ্গবন্ধুরা ক্ষণজন্মা, সব সময় পৃথিবীতে আসেন নাঃবাংলাদেশের অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল

আবু আলী, ঢাকা॥ বাংলাদেশের ‘জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান, এরা ক্ষণজন্মা মানুষ। এরা সব সময় পৃথিবীতে আসেন না। আমরা সৌভাগ্যবান, এই জাতি সৌভাগ্যবান। তিনি যদি গড গিফটেড না হতেন, তাহলে পরিকল্পিতভাবে একটি অসাধ্য কাজ সাধন করতে পারতেন না। তিনি আমাদের উপহার দিয়ে গেছেন একটি লাল-সবুজের পতাকা।’

১১ জানুয়ারি শনিবার রাজধানীর হাতিরঝিলে জাতির পিতার জন্মশতবার্ষিকী উপলক্ষে একযোগে দেশের সব উপজেলায় এবং কেন্দ্রীয়ভাবে ঢাকায় উৎসব অনুষ্ঠানে বাংলাদেশের অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল এসব কথা বলেন। জাতির পিতা স্বপ্ন দেখেছিলেন যে দেশের কোনো মানুষ সুযোগ থেকে বঞ্চিত থাকবেন না জানিয়ে অর্থমন্ত্রী বলেন, ‘আজকে প্রধানমন্ত্রী সেই কাজ করে যাচ্ছেন।’

মুস্তফা কামাল বলেন, ‘সারাবিশ্ব যেভাবে বলছে, ২০২৫ থেকে ২০৩০ সালের মধ্যে বাংলাদেশ এ অঞ্চলের সবচেয়ে শক্তিশালী দেশ মালয়েশিয়া ও সিঙ্গাপুরকে পেছনে ফেলে আরও ওপরে চলে যাবে ইনশাআল্লাহ। ২০৩১ সালের মধ্যে আমরা তাইওয়ানকে পেছনে ফেলব। বিশ্বের ১৯৩টি দেশের মধ্যে আমাদের অবস্থান ৩০ নম্বরে। বিশ্বাস করি, ২০২৭ সালে ২৪তম অবস্থানে আসব। আর ২০৪১ সালের অনেক আগেই আমাদের দেশকে আমরা টপ-২০-তে নিয়ে যাব। গত ১১ বছর আমি যা বলেছি, হিসাব মিলিয়ে নেন, প্রত্যেকটা অক্ষরে অক্ষরে প্রতিফলিত হয়েছে।’ তিনি বলেন, ‘জাতির পিতা যেন আমাদের মাঝ থেকে কোনো দিন হারিয়ে না যায়। তাকে বিশ্বাসের জায়গা থেকে বিশ্বাস করতে হবে। তিনি মরেন নাই, জাতির পিতারা মরেন না। সেই বিশ্বাস আমাদের মাঝে ধারণ করতে হবে। জাতির পিতা যেন সূর্যের মতো দেদীপ্যমান থাকে সারাজীবন আমাদের মাঝে, সেই কাজ করতে হবে। এই কাজ যারা করতে পারবেন তারা হলেন তরুণ সমাজ। আমরা যেখান থেকে রেখে যাব, প্রধানমন্ত্রী যেখান থেকে রেখে যাবেন, তরুণদের সেখান থেকে শুরু করতে হবে।’
‘আজকে সারা জাতি প্রস্তুতি নিচ্ছে জাতির পিতার শততম জন্মবার্ষিকী অনেক উচ্চতায় নিয়ে সারা বিশ্বের কাছে উপস্থাপন করার। আমরাও আপনাদের সঙ্গে হাতে হাত মিলিয়ে জাতির পিতাকে অনেক উচ্চতায় নিয়ে যাব’, যোগ করেন অর্থমন্ত্রী।


১১ই জানুয়ারি ২০২০

Post a Comment

নবীনতর পূর্বতন