অবুঝ শিশুর নির্বাক চাহনি অনেক প্রশ্ন! ...শফিকুল ইসলাম খোকন,বাংলাদেশ - আরশি কথা

আরশিকথা ঝলক

Home Top Ad

test banner

Post Top Ad

test banner

রবিবার, ২১ জুন, ২০২০

অবুঝ শিশুর নির্বাক চাহনি অনেক প্রশ্ন! ...শফিকুল ইসলাম খোকন,বাংলাদেশ

একটি ছবি অনেক প্রশ্ন? আমাদের সাংবাদিকতার অভিজ্ঞতা জানি, কোন সংবাদের সংশ্লিষ্ট ছবিই বলে দেয় ছবির কথা। আর সেই ছবি দিয়েই আমরা বলে থাকি ছবি কথা বলে। হ্যাঁ এ কথাটি একেবারেই সঠিক। ছবিই কথা বলে। কোন কোন ছবি তার কথাগুলো বহিঃপ্রকাশ ঘটায় অনেক ইঙ্গিত দিয়ে। আগেই বলেছি একটি ছবি অনেক প্রশ্ন, সেই ছবিতে চোখের চাহনিই বলে দেয় অনেক কথা, রয়ে যায় অনেক প্রশ্ন। এ প্রশ্নের উত্তর হয়তো অনেকেরই জানা আছে। কিন্তু অবুঝ সন্তানটি যা চায় তা এ মুহুর্তে বাবা দিতে পারছেনা। আমি একজন বাবার ছেলে। আমি এক সন্তানের বাবা হয়ে এটি উপলব্দি করছি। সন্তানের চাহনি কত আবেগের, কতো কষ্টের, কতো বেদনার। তারপরেও অবুঝ সন্তান যেমন মনে করছে বাবার আদর, স্নেহ ভালোবাসা পাবে ঠিক বাবাও মনে করছে সন্তানকে ভালোবাসা, আদর স্নেহ দিতে। বাবা খাটের উপর বসা, অবুঝ ছেলে দরজা ঠেলে উকি দিয়ে নির্বাক চাহনি...। খালি গায়ে ছেলেটি বাবার চোখের দিকে তাকিয়ে আছে। কি যেন বলতে চায়, কাছে আসতে চায়, একটু আদর ভালোবাসা পেতে চায়। কিন্তু বাবাছেলের ধৈর্য্যের যে বাধ ভেঙ্গে যায়... গত কয়েকমাস ধরে শুধু বাংলাদেশেই নয় বিশ্বেই একটি একটি শব্দ আমাদেরকে হতভাগ করে দিয়েছে, কত স্বজন চোখের সামনে দিয়ে চলে গেছে না ফেরার দেশে। করোনা দেখিয়েছে কেউ কারো নয়, করোনা কতো নিষ্ঠুর, কতো পাষান; স্বজন মারা গেলে তার কাছে কেউ যায়নি, করোনা দেখিয়েছে কেয়ামতের আলামত। করোনাভাইরাস বা কোভিড-১৯ মহামারির মধ্যে বাবা, মা কিংবা নিকটজনের কাছে যেতে না পারায় শিশুদের হৃদয়বিদারক অনেক দৃশ্য ইতিমধ্যে আমরা দেখেছি। তেমন দৃশ্য এবার দেখা গেল রাজধানী ঢাকায়। হোম আইসোলেশনে থাকা বাবাকে দূর থেকে দেখার এ ঘটনা বহু মানুষের হৃদয় ছুঁয়েছে। সময় টেলিভিশনের অনলাইন ভার্সনে ছবিটিই বলে দিয়েছে করোনা কতো নিষ্ঠুর, কতো পাষান; ছবিতে চাহনী বলে দেয় অবুঝ শিশুর আকুতি, বাবার কাছে যাওয়া, বাবার কোলে বসা, বাবার আদর স্নেহ পাওয়া। সময় নিউজের সংবাদকর্মী প্রভাষ চৌধুরী ও তার অবুঝ সন্তানের এমন ছবিই আমাকে কাঁদিয়েছে। প্রভাষ চৌধুরী আমার এক সময় সহকর্মী ছিলেন। এখন সময় টিভিতে কাজ করছেন। খুবই হাস্যজ্জল মানুষ। তার সাথে আমার আন্তরিকতার কমতি নেই। অফিসে বসে কতো কথাই না হতো। এখন অন্য হাউজে যাওয়ার কারণে তত হয়না। বাবা করোনাভাইরাস বা কোভিড-১৯ এ আক্রান্ত হয়েছেন। হোম কোয়ারেন্টিনে থাকা বাবার কাছে যেতে বায়না ধরেছে তিন বছরের শিশু। পাশের কক্ষ থেকে কান্নার শব্দ শুনছেন বাবা। নিজেও আর ধৈর্য্য ধরতে না পেরে স্ত্রীকে বললেন দরজাটা খুলে একটু দেখাতে। দরজার কাছে দাঁড়িয়ে বাবার দিকে নির্বাক চেয়ে থাকে শিশুটি। ঘটনা রাজধানীর ভাটারা এলাকায়। সময় নিউজের সংবাদকর্মী প্রভাষ চৌধুরীর করোনা ধরা পড়ে গেল ১২ তারিখ। সেই দিন থেকেই তিনি বাসায় আইসোলেশনে আছেন। প্রভাষ চৌধুরীর তিন বছরের সন্তান অনুব্রত চৌধুরী। গত বুধবার (১৭ জুন) অনুব্রতের এই দৃশ্যটি ক্যামেরায় ধারণ করেন প্রভাষ চৌধুরী নিজেই। আজ রোববার বাবা দিবস। প্রতি বছর জুন মাসের তৃতীয় রোববার বাবা দিবস পালিত হয়ে থাকে। এই বাবা দিবসেও (রোববার, ২১ জুন) দরজার চৌকাঠ পেরিয়ে বাবা প্রভাষ চৌধুরীর কাছে আসতে পারছে না ছেলে! কারণ বাবা আইসোলশনে! এ দিবসেই হোক না বাবাছেলের মিলন। অবুঝ ছেলে অনুব্রতের বাবার আদর, স্নেহ ভালোবাসা পাবে এটাই কামনা করছি। ছোট্ট সোনামণির আধো আধো বুলি ‘পা-পা’ থেকে যেই শব্দটা উঠে আসে, তার পূর্ণাঙ্গ রূপ বাবা। যার হাতের আঙুল ধরে হাঁটতে শেখা, সন্তানের কাছে সেই ‘বাবা’ একটা নির্ভরতার নাম। বাবা মানে নিখাদ আশ্রয়, শীতল ছায়া, ভরসা আর শাশ্বত চির আপন। সেই আপনজনের প্রতি সন্তানের চিরন্তন ভালোবাসার প্রকাশ ঘটে প্রতিদিনই। তারপরও বাবার জন্য বিশেষ একটা দিন, যেদিন সব ধরনের সংকোচ ভুলে মনের কোণে একটু সাহস জমিয়ে একটু শক্ত আর মায়াময় জাদুকরী মানুষটাকে বলা যায়- বাবা, ভীষণ ভালোবাসি তোমাকে!

শফিকুল ইসলাম খোকন
লেখক,সাংবাদিক,কলামিষ্ট
বাংলাদেশ

২১শে জুন ২০২০


কোন মন্তব্য নেই:

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

Post Bottom Ad

test banner