অমিত শাহ এর বিরুদ্ধে এফআইআর করলো এনএসইউআই - আরশি কথা

আরশিকথা ঝলক

Home Top Ad

Responsive Ads Here

Post Top Ad

Responsive Ads Here

মঙ্গলবার, ৩ জুলাই, ২০১৮

অমিত শাহ এর বিরুদ্ধে এফআইআর করলো এনএসইউআই

তন্ময় বনিক, আগরতলাঃ
বছরে দুই কোটি চাকরি দেওয়া হবে। কালোধন বিদেশ থেকে নিয়ে আসা হবে। প্রত্যেকের ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্টে ১৫ লক্ষ টাকা করে দেওয়া হবে। এধরনের অনেক প্রতিশ্রুতি দিয়েছিলো বিজেপি কেন্দ্রে ক্ষমতায় আসার আগে। কিন্তু ক্ষমতায় আসার পর কোনও প্রতিশ্রুতি রক্ষা করা হয়নি। উল্টো দলের সর্বভারতীয় সভাপতি অমিত শাহ রাতারাতি ৭৫০ কোটি টাকার মালিক হয়েছেন। এই অভিযোগ তুলেছে এনএসইউআই। মঙ্গলবার(৩জুলাই) সারা দেশের সঙ্গে রাজ্যেও এইসমস্ত অভিযোগ তুলে থানায় এফআইআর করে কংগ্রেসের এই ছাত্র সংগঠন। 
পশ্চিম আগরতলা থানায় প্রদেশ এনএসইউআই এর পক্ষ থেকে এফআইআর করা হয়। এই কর্মসূচীর নেতৃত্বে ছিলেন এনএসইউআই এর রাজ্য সভাপতি রাকেশ দাস। এদিন পশ্চিম আগরতলা থানার সামনে বিক্ষোভও দেখান এনএসইউআই কর্মীরা। 
শ্রী দাস বলেন, দেশের প্রতিটি রাজ্যেই এদিন বিভিন্ন থানাগুলিতে এফআইআর করা হয়। লক্ষ্য সারা দেশে অন্তত দশ হাজার এফআইআর করা। এর মধ্য দিয়ে সারা দেশে নরেন্দ্র মোদির বিরুদ্ধে এবং রাহুল গান্ধীর সমর্থনে আওয়াজ উঠে বলে দাবি করেন তিনি। 
এদিকে ত্রিপুরা মেডিক্যাল কলেজে বর্ধিত ফি প্রত্যাহারের দাবিতে রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী ও স্বাস্থ্যমন্ত্রীর দৃষ্টি আকর্ষণ করেছে এনএসইউআই। মঙ্গলবার সংগঠনের পক্ষ থেকে এক সাংবাদিক সম্মেলনে রাজ্য সভাপতি রাকেশ দাস বলেন, আগেও তারা বর্ধিত ফি প্রত্যাহারের দাবিতে আন্দোলন করেছেন। 
কেন ছাত্রছাত্রীদের কথা ভেবে অতিরিক্ত ফি প্রত্যাহার করা হচ্ছেনা সেই প্রশ্ন তোলেন তিনি। তাছাড়া বি এড কোর্সে ভর্তির ক্ষেত্রে এখনও সংখ্যালঘুদের নামের তালিকা প্রকাশ করা হয়নি। অথচ ৮ জুলাই ভর্তির শেষ দিন। 
সংগঠনের পক্ষ থেকে এই ইস্যুতে শিক্ষা দপ্তরের দৃষ্টি আকর্ষণ করা হয়। 

ছবিঃ সুমিত কুমার সিংহ
৩রা জুলাই ২০১৮ইং         

কোন মন্তব্য নেই:

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

Post Bottom Ad

Responsive Ads Here