হঠাৎ দেখা......... ঢাকা থেকে খোরশেদ আলম বিপ্লব এর ছোট গল্প - আরশি কথা

আরশিকথা ঝলক

Home Top Ad

test banner

Post Top Ad

test banner

রবিবার, ২২ সেপ্টেম্বর, ২০১৯

হঠাৎ দেখা......... ঢাকা থেকে খোরশেদ আলম বিপ্লব এর ছোট গল্প

সে দিন ছিলনা কোন অমাবস্যার ঘোর পূর্নিমা। ভোরের স্নিগ্ধ আলোর মাঝে কোন প্রাকৃতিক বৈরীতার আনাগোনাও ছিল না, কোথাও না । অলিন্দে ফোটেনি নীল অপরাজিতা ফুল। তবুও সেদিন অনাকাঙ্ক্ষিত ভাবে তোমার সঙ্গে দেখা হয়েছিল পাঠক ও লেখক পরিচয়ে।
জলপাই কালারের একটা পাঞ্জাবী গায়ে তোমাকে দারুন দেখাচ্ছিল সেদিন। আমি দুর থেকে দেখছিলাম তোমায়। এক হাতে বই আর অন্য হাতে ফোনে কারো সাথে কথা বলছিলে। মৃদু পায়ে হেটে তোমার পাশে গিয়ে দাঁড়ালাম। আমার দিকে চেয়ে তুমি মৃদু হাসলে, দেবমূর্তির মতো অদ্ভুত অপার্থিব সে হাসি। আমি শুধু অবাক বিস্ময়ে চেয়ে দেখলাম। মনে হল আমার সর্বস্ব খোয়া গেছে। কে যেন আমার মগ্নচৈতন্যে শিস দিয়ে গেল সন্তপনে। আর দূরে, বহুদুরে, লোকালয় পেরিয়ে কোথায় যেন বেজে উঠল রাখালের মোহন বাঁশি।। তুমি আমাকে কিছু জিজ্ঞাসা করছো সেই দিকে কোন খেয়ালই ছিলনা, অপলক দৃষ্টিতে তাকিয়ে ছিলাম।
হঠাৎ গাড়ির হর্ন এ আমার ধ্যান ভাঙ্গলো,, আমি অদ্ভুত দৃষ্টিতে তখনো তোমার দিকে তাকিয়ে ছিলাম,,,, মনে মনে নিজেকেই বকা দিচ্ছি এই ভেবে যে আমি কি করছি, যদি আমাকে দেখে ফেলতো,,, আমি ফ্যাল ফ্যাল করে তার দিকে তাকিয়ে ছিলাম,,, লজ্জায় তার দিকে আর তাকাতে পারছিলাম না ।
জিজ্ঞাসা তে শুনলাম  তুমি সকালে খাওনি, আর তা শুনে নাস্তা খাবার জন্য একটুখানি হেঁটে তোমার পথ সংগী হলাম কিছদুর পর্যন্ত । তারপর খানিকটা খাওয়ার  আলাপচারিতায় ফাঁকে তোমার কথার অন্তরালে কতবার বিমুগ্ধ নয়নে তোমায় অবলোকন করেছি তা শুধু আমি আর আমার  অন্তর্যামী জানে।
আজ অনেকটা সময় অতিবাহিত হয়েছে জীবনের নিয়মের আবর্তনে আন্দোলিত ও হয়েছি বহুবার । স্মৃতির আয়নায় অনেক কিছুই আছে কিন্তু সেই স্বল্প সময়ের জন্য দেখা বন্ধু সুলভ আলোচনা, মনের অজান্তে নিজেকে নিয়ে কিছু বলা আজ শুধু হৃদয়ের আঙ্গিনায় দোলা দিচ্ছে। কি অপরূপ তোমার চলে যাওয়ার দৃশ্য, মিষ্টি হাসি একদৃষ্টিতে তাকিয়ে থাকা আজ ও মনে লেপটে আছে।
জোছনার নির্মল আলোয় বসে আছি একাকী আঙিনার এক কোনে। আমি বিহীন এখানে আর কেউ নেই, দুর গগনে শুধু হুর পরীদের আনাগোনা। যতদুর অব্দি চোখ যায়  সবুজের ঘেরা একটি মাঠ নিশিভেজা ধানের শীষ গুলো দোল খাচ্ছে বুঝতে পারছি। আর বাকী সব  টুকু জুড়ে আছে তোমার সেই প্রথম এবং শেষ দেখার স্মৃতি  তোমার‌ই  গাঁথা কথার মালা।
মাঝে মাঝে অবাক হ‌ই যে মানুষটা কোনদিন প্রেম ভালোবাসার কথা বিন্দু মাত্র অনুভব করেনি ইচ্ছে সেতো দুরে থাক ভাবনায় ও ছিলনা অথচ সেই মানুষটাকে নিরন্তর ভালোলাগার অনুভূতিতে বন্ধুত্বের বন্ধনে আবদ্ধ করে ফেলেছি আজীবনের জন্য । অথচ সেই মানুষটা জানে ও না যে তার অবস্থান আমার মনের আঙ্গিনায় কতটুকু।
কর্মক্লান্ত দিন শেষে যখন জানালা খুলে ঐ দুর আকাশ পানে চেয়ে থাকি, তারাগুলো মিটিমিটি করে  জ্বলে তখন তোমাকে মনে পড়ে নিঃশব্দে । একাকী বসে থাকি
যখন তোমার কথা ভাবি । স্মৃতি গুলো মনে পড়লে শুধু হাসি আর কাঁদি। কি অজানা নিঃশর্ত বন্ধুত্বের বন্ধন
কেউ না জানুক মন তো জানে । মনের ও যে কষ্ট আছে বেদনায় তা লুকিয়ে রাখে হাজার ছলনায়।
মানুষ বলেই জীবন খাতায়  তুলে রাখি অনেক কিছু ‌। না বলা- না পাওয়া কিছু অতৃপ্ত বাসনা যা থাকে স্মৃতির পাতায় পাতায়। দুরে গেলে ভাল সবই, কাছে গেলে নাই,  যখন দেখি চাওয়া পাওয়া শুন্যতে পাই। অদৃশ্য ভালবাসায় অনায়াশে ঝরে গেল চোখের জল। আমার কাছে ভালবাসা যেন অবকাশ, ভালবাসা নকশী কাঁথা গোপন ও ব্যাথা। মনের গহীনে যাকে খুঁজে হারিয়ে গেলাম গহীন অরণ্যে, পেঁচানো লতার মাঝে  জড়িয়ে আছি একাকীত্বে। ডেকেও যখন ডাক মেলেনা তখন আমার মন  ভাবে হয়তো একটু পরে  কোন সান্ধ্যক্ষনে আসবে আমার সেই বন্ধু প্রিয়জন।।
জানিনা কোথায় আছো কেমন আছো । হয়তো ভুলে গেছো সেই ক্ষনিকের দেখা স্মৃতি। সংসারের মায়াজাল টা  বড্ড কঠিন ও মধুর। সব কিছুর শেষে সেই মায়াকুঞ্জে মাথা ঠেকাতে হয় আমাদের ওটাই সঠিক জায়গা। তুমি ও তার বাইরে ন‌ও। তবুও তোমাকে দ্বিতীয় বার না দেখার কিংবা কাছে বসে হাত দুটো ছুঁয়ে কিছু বলতে না পারার আক্ষেপে "দু চোখে জল ঝরে"। কিন্তু কেন হিসেব মেলাতে পারিনা।  তোমার স্মৃতিগুলো শুধু বার বার  মনে পড়ে, অদৃশ্য আঘাতের ছোবলে ভেঙ্গেছে মনের ঘর। ঢেকেছে আমার ব্যক্তি স্বপ্নীল ইচ্ছে গুলো ঘোর অন্ধকারে।
আচ্ছা বলতো কেন এসেছিলে আমার এই নিঃসঙ্গ জীবনে? আমার স্বপ্ন মরনে, নাকি তোমার প্রয়োজনে?
দিন চলে যায় রাত আসে আমি শুধু জেগে থাকি  বিরহের কিনারায়। ওগো বন্ধু আমার মন আর বিশ্বাসে বেঁচে থেকো আমার আরাধনায় তবেই আমি দায়মুক্ত হবো আমার হৃদয় রাজ্যে।
যদি কখনো তোমার অনিচ্ছায় কিংবা চলতি পথে হঠাৎ তোমায় দেখে থেমে, যাই দুর করে দিওনা যেন। আমার বন্ধুত্বের দাম চাইবো না কোন দিনই । শুধু সেই প্রথম দেখার ভালো লাগার মতো তৃপ্ত হতে চাই, কিছু সময় ডুবে থাকতে চাই সেই অপলক চাহনিতে ।
আমি আছি, ছিলাম,থাকবো ও মনের আঙ্গিনায় মাদুর পেতে কবে আসবে আমার সেই বন্ধু । যার এক ঝিলিক হাসি আমার জমানো শত কষ্টগুলো আজীবনের তরে ধুয়ে মুছে নিয়ে যাবে সমুদ্র স্নানে।

খোরশেদ আলম বিপ্লব
ঢাকা, বাংলাদেশ

২২শে সেপ্টেম্বর ২০১৯

কোন মন্তব্য নেই:

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

Post Bottom Ad

test banner