পদচিহ্ন" (নেপালি কবিতা) ঃ গ্যাংটক থেকে কবি সুধা এম. রাই / অনুবাদ: বিলোক শর্মা (ডুয়ার্স, পশ্চিমবঙ্গ) - আরশি কথা

আরশিকথা ঝলক

Home Top Ad

Responsive Ads Here

Post Top Ad

Responsive Ads Here

রবিবার, ১১ অক্টোবর, ২০২০

পদচিহ্ন" (নেপালি কবিতা) ঃ গ্যাংটক থেকে কবি সুধা এম. রাই / অনুবাদ: বিলোক শর্মা (ডুয়ার্স, পশ্চিমবঙ্গ)

পদচিহ্ন"

(নেপালি কবিতা)


অভীপ্সার বালিময় খরা

আমার অচেতনতার চিত্রবস্তি

মৌন ও নি:শব্দ।


শেষপর্যন্ত,

তুমি আসলে

অনবরত মরুভূমি পেরিয়ে

তবে অন্য কারোর জন্য


হৃদয়গ্রাহী

তোমার তৃষ্ণার কিছু বিন্দু

যেন গ্রহণ করতে পারি

তোমার জীবনের কিছু ফোটারা

এই বন্ধ্যা বুক যেন ভেজাতে পারি

এবং যেন পাই

আমার নগ্নতা ঢাকতে

শুধু করতলজুড়ে বস্ত্র।


যদিও

আমি অজানা নই

তুমি স্বয়ং মরুভূমিতে রয়েছো

আমি অবধি পৌছোতে

তুমি ধীরে ধীরে পা বাড়াও এদিকে

খরার তীব্রতায় পা রেখে

সমীপে

আমার হৃদয়ের সমীপে।

সেই জীবজল

ক্লান্ত তোমার উচ্ছ্বাস থেকে অনায়াসেই নিষ্পেসিত হয়ে

চুইয়ে পড়ে যখন আমার শুষ্ক ঠোঁটে

            বন্ধ্যা বুকে

            কিছুটা চাপা নাভি হয়ে

            যৌনাঙ্গ পর্যন্ত এবং

উর্বর হয়ে উঠে মরুভূমি।


অভীপ্সার বালিময় খরা

হে! আমার অচেতনতার চিত্রবস্তি

এবেলা আমায় তোমার মৌনতা ও নি:শব্দতা থেকে

উঠে একটি যৌবন বাঁচতে দাও।


# (নেপালি কবিতা ‘পদচিহ্ন'-এর বঙ্গানুবাদ)


-কবি সুধা এম. রাই, (গ্যাংটক)

অনুবাদ: বিলোক শর্মা (ডুয়ার্স, পশ্চিমবঙ্গ)


১১ই অক্টোবর ২০২০


 

কোন মন্তব্য নেই:

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

Post Bottom Ad

Responsive Ads Here