৬৮তম সমবায় সপ্তাহ উদযাপন করা হবে ১৪-২০ নভেম্বর : সমবায় মন্ত্রী

নিজস্ব প্রতিনিধি,আগরতলা,আরশিকথাঃ


রাজ্যে ‘সমবায়ের মাধ্যমে সমৃদ্ধি' এই ভাবনায় ১৪-২০ নভেম্বর সপ্তাহব্যাপী ৬৮তম সমবায় সপ্তাহ উদযাপন করা হবে। শুক্রবার মহাকরণে সাংবাদিক সম্মেলনে সমবায় মন্ত্রী রামপ্রসাদ পাল সমবায়ের প্রেক্ষাপট ও রাজ্যে সমবায়ের ভূমিকা নিয়ে আলোকপাত করেন। সমবায় মন্ত্রী জানান, ভারতের স্বাধীনতার ৭৫ বৎসর পূর্তি এবং ত্রিপুরা পূর্ণ রাজ্য প্রাপ্তির ৫০ তম বৎসরের স্বীকৃতি উপলক্ষে ভারত সরকারের সিদ্ধান্তক্রমে সমগ্র দেশের সঙ্গে ‘আজাদি কা অমৃত' মহোৎসব উদযাপনের অঙ্গ হিসাবে এই বছর সারা রাজ্যে সপ্তাহব্যাপী সমবায় সপ্তাহ পালন করার পরিকল্পনা নেওয়া হয়েছে। তিনি জানান, আগামী ১৪ নভেম্বর আগরতলা টাউনহলে সপ্তাহব্যাপি সমবায় সপ্তাহ উদযাপনের সূচনা করবেন মুখ্যমন্ত্রী বিপ্লব কুমার দেব। এছাড়াও সপ্তাহব্যাপি সমবায় সপ্তাহ উদযাপনের অঙ্গ হিসেবে ১৫ নভেম্বর ঊনকোটি জেলার নজরুল কলাকেন্দ্র (ফটিকরায়), ১৬ নভেম্বর উত্তর ত্রিপুরা জেলার চিন্তা লোহার সদন কমিউনিটি হলে(হাফলং), ১৭ নভেম্বর খোয়াই জেলার লোটাস মঞ্চে (কল্যানপুর) এবং সিপাহীজলার লীলা দেব স্মৃতি কমিউনিটি হল(চড়িলাম), ১৮ নভেম্বর ধলাই জেলার সালেমা কমিউনিটি হলে, ১৯ নভেম্বর গোমতী জেলার পিআরটিআই (গকুলপুর) ও ২০ নভেম্বর দক্ষিণ ত্রিপুরা জেলার বসুন্ধরা হল (মনুবাজার) জেলা ভিত্তিক সমবায় সংক্রান্ত বিভিন্ন বিষয়ে আলোচনাচক্র অনুষ্ঠিত হবে। সাংবাদিক সম্মেলনে তিনি জানান, সমবায় সপ্তাহ উদযাপনের মূল উদ্দেশ্য হচ্ছে সমবায়ের কাজকর্মের উপর আলোচনা পর্যালোচনার মাধ্যমে বিগতদিনের ভুলত্রুটি ও সাফল্য চিহ্নিতকরণ, যাতে করে সমবায়ের সঙ্গে যুক্তরা অনুপ্রাণিত হন এবং যথাযথ আন্তরিকতা ও উদ্যোগের মাধ্যমে স্ব স্ব সমবায়ের সঠিক পরিকল্পনার মাধ্যমে গ্রামীন অর্থনৈতিক বিকাশকে ত্বরান্বিত করতে পারেন। সম্প্রতি কেন্দ্রীয় সরকার সমবায়কে পৃথক মন্ত্রনালয় হিসেবে স্বীকৃতি দিয়েছে। তিনি বলেন, ত্রিপুরায় মোট ২১৭০টি বিভিন্ন পেশাভিত্তিক সক্রিয় সমবায় সমিতিসমূহ গ্রামীন আর্থ-সামাজিক উন্নয়নে নিরলসভাবে কাজ করে চলেছে। তিনি বলেন, সমবায় দপ্তর ইতিমধ্যে অর্থনৈতিক নানা কর্মকান্ডের সঙ্গে যুক্ত ক্ষুদ্র এবং প্রান্তিক কৃষক, মহিলা, যুবক তথা সমাজের অগ্রসর শ্রেণীর স্বরোজগারের মাধ্যমে স্বনির্ভর করে তোলার উদ্দেশ্যে আগামি ২ বছরে নতুন ৩,৫০০ সমবায় সমিতি গঠনের উদ্যোগ গ্রহন করেছে। সমবায় সমিতি গঠনে উদীয়মান ক্ষেত্রের অন্তর্গত মৎস্য, প্রানীসম্পদ, ট্যুরিজম, হাউসিং ইত্যাদি বিষয়ে অগ্রাধিকার দেওয়া হবে।  সাংবাদিক সম্মেলনে সমবায় দপ্তরের বিশেষ সচিব অভিষেক চন্দ্রা এবং সমবায় নিয়ামক ডি কে চাকমা উপস্থিত ছিলেন।


আরশিকথা ত্রিপুরা সংবাদ

১২ই নভেম্বর ২০২১
 

Post a Comment

নবীনতর পূর্বতন