লায়ন্স ক্লাব অব আগরতলা সিটি'র উদ্যোগে মরণোত্তর চক্ষুদান কর্মসূচী - আরশি কথা

আরশিকথা ঝলক

Home Top Ad

Responsive Ads Here

Post Top Ad

Responsive Ads Here

সোমবার, ৩১ আগস্ট, ২০২০

লায়ন্স ক্লাব অব আগরতলা সিটি'র উদ্যোগে মরণোত্তর চক্ষুদান কর্মসূচী

নিজস্ব প্রতিনিধি,আগরতলা,আরশিকথাঃ

লায়ন্স ক্লাব ইন্টারন্যাশনাল একটি অরাজনৈতিক সেবামূলক সংগঠন।১৯১৬ সালে মেলভিন জন্স শিকাগোতে এই ক্লাবের প্রতিষ্ঠা করেন।২০১৫ সালের মধ্যে সারাবিশ্বের ২০০ টি দেশে ১.মিলিয়ন সদস্য নিয়ে ৪৬০০০ হাজার স্থানীয় ক্লাব গঠিত হয়।লায়ন্স ক্লাব ইন্টারন্যাশনাল এর  সদর দপ্তর যুক্তরাষ্টের ওয়ার্ক ব্রুক, ইলিয়ন্স এ অবস্থিত।বর্তমানে ২২০টিরও বেশি দেশে এই ক্লাবের নানা সেবামূলক কর্মকান্ডের ধারা অব্যাহত রয়েছে।ত্রিপুরা রাজ্যেও এই ক্লাবের বহু শাখা রয়েছে।রাজ্যে বিগত কয়েক বছর ধরেই নানা সেবামূলক কর্মকান্ডের পাশাপাশি বিভিন্ন পরিষেবা প্রদানেও সামাজিক দায়বদ্ধতায় কাজ করে চলেছে লায়ন্স ক্লাব অব আগরতলা সিটি।






রবিবার(৩০ আগস্ট)আগরতলাস্থিত প্রধান কার্যালয়ে আরও একটি সেবাধর্মী কাজে উদাহরণ গড়লো লায়ন্স ক্লাব অব আগরতলা সিটি।এদিন ক্লাবের উদ্যোগে ২৫জন মরণোত্তর চক্ষুদান করেন।আরশিকথার সঙ্গে একান্ত সাক্ষাৎকারে ক্লাবের এক কর্মকর্তা রাজেশ দেবনাথ জানান, সামাজিক কর্মকান্ডে গোটা বিশ্ব জুড়েই উদাহরণে রয়েছে লায়ন্স ক্লাব।পৃথিবী ব্যাপী এই কর্মকান্ড চলে আসছে বহু বছর ধরে আর চলবেও।ক্লাবের সদস্যরা সামাজিক কাজকে জীবনের গুরুত্বপূর্ণ কর্তব্যে পরিণত করেছে।


তিনি আরও জানান যে,আগামীদিনে ত্রিপুরা রাজ্যে একটি উন্নত মানের চক্ষু হাসপাতাল গড়ার পরিকল্পনা ইতিমধ্যেই নেওয়া হয়েছে।একে কেন্দ্র করে জমিও দেখাশোনার কাজ প্রায় শেষের পথে।লায়ন্স ক্লাব অব আগরতলা সিটি সহ রাজ্যের অন্যান্য লায়ন্স ক্লাবের শাখাগুলি একজোটে এই চক্ষু হাসপাতাল গড়ার কাজের সিদ্ধান্ত নিয়েছে।শ্রী দেবনাথ আরও বলেন,বর্তমানে করোনা পরিস্থিতিতে দফায় দফায় লকডাউন চলছে।এতে শ্রমজীবী মানুষের রোজগার প্রায় বন্ধের মুখে।এমতবস্থায় তাদের দৈনন্দিন জীবন সমস্যার মুখে।তাই লকডাউনের প্রথম দিক থেকেই লায়ন্স ক্লাব অব আগরতলা সিটি তাদের প্রতি ত্রাণদানে নিজেদের নিয়োজিত রেখেছে।



 
চলছে বছরব্যাপী সেবামূলক কাজ।আগামীদিনেও এই কাজ জারি থাকবে বলে তিনি জানান।এদিন ক্লাবের অন্যান্য পদাধিকারীরাও উপস্থিত ছিলেন।
রবিবার ক্লাবের 
প্রধান কার্যালয়ে চক্ষুদানকে কেন্দ্র করে সদস্যদের মধ্যে যথেষ্ট উৎসাহ পরিলক্ষিত হয়।

ছবিঃ সুমিত কুমার সিংহ
আরশিকথা

৩১শে আগস্ট ২০২০       



 
 

  

কোন মন্তব্য নেই:

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

Post Bottom Ad

Responsive Ads Here